রাজ্য় জুড়ে চলছে তৃতীয় দফার লকডাউন। দীর্ঘ লকডাউনের জেরে বন্ধ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। তাই পড়াশোনায় যাতে ঘাটতি না হয়, সিলেবাস যাতে শেষ করা যায় তাই কলেজ-বিশ্বিবিদ্যালয়ে  অনলাইন ক্লাসেই সবাই উপস্থিত থাকছে। এদিকে লকডাউন ওঠার পর যখন বিশ্ববিদ্য়ালয় খুলে যাবে, তার এক মাসের মধ্যে হবে ফাইনাল সিমেস্টার।

আরও পড়ুন, ঝড়-বৃষ্টি সঙ্গেই লাফিয়ে চড়ছে পারদ, আগামী ২৪ ঘণ্টায় কালবৈশাখীর সম্ভাবনা কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গে

করোনা আবহে তালা রাজ্য়ের স্কুল-কলেজ ও বিশ্ববিদ্য়ালয় গুলিতে। এই প্রেক্ষিতে স্নাতক ও স্নানকোত্তর রাজ্য়ের প্রায় ১৯ লক্ষ গৃহবন্দি পড়ুয়ার ভবিষ্য়ত নিয়েই এই বৈঠক করা হয়েছে। লকডাউনের পর কলেজ-বিশ্বিবিদ্যালয় খোলার এক মাসের মধ্যে ফাইনাল সিমেস্টার। কী পদ্ধতিতে কত নম্বরের পরীক্ষা- ঠিক করবে সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়। ফাইনাল ছাড়া অন্য় কোনও সেমিস্টারও হবে কিনা সেই সিদ্ধান্তও ছাড়া হয়েছে বিশ্ববিদ্য়ালয়ের উপরেই। বর্তমান ও আগের পরীক্ষার উপর ভিত্তি করেই গ্রেড দেওয়া হবে পড়ুয়াদের।

আরও পড়ুন, শ্রমিকদের ফেরাতে কেন্দ্র দিচ্ছে ৮৫ শতাংশ,রাজ্য়কে দুষে জানালেন দিলীপ

 শনিবার রাজ্য়ের সরকারী সাহায্য় প্রাপ্ত ২০ বিশ্ববিদ্য়ালয়ের উপাচার্যদের সঙ্গে শিক্ষামন্ত্রীর ভিডিও কনফারেন্সে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে পরীক্ষা হতে পারে হোম সেন্টারে। উল্লেখ্য় অপরদিকে ইউজিসি-র সুপারিশ অনুযায়ী জুলাই-র বদলে সেপ্টেম্বরে হবে শিক্ষাবর্ষ।

আরও পড়ুন, লকডাউনে কুমোরটুলির পাশে দাড়ালেন রুপান্তরকামী, এগিয়ে এলেন মানবধিকার সংস্থা ও অপরাধদমন শাখা

 

 

'যোদ্ধারা সমরে-করোনা দূরে', ফের সচেতনতামূলক পথচিত্র আঁকল বেলেঘাটা ৩৩ পল্লী

বেহালা হাসপাতালের প্রসুতির শরীরে মিলল এবার করোনার জীবাণু, কেপিসি-র ৩ রোগীর রিপোর্টও পজিটিভ

রোগী ফেলে পালাতে পারল না অ্যাম্বুল্যান্স, পিপিই পরা স্বাস্থ্য়কর্মীদেরকে তীব্র প্রতিবাদ নাকতলাবাসীর