লকডাউনে স্বাস্থ্য়বিধি মেনেই রাজ্য়ে বিধান নগর সিটি পুলিশের উদ্যোগে সল্টলেকের বিভিন্ন এলাকায় কবি প্রণাম এর আয়োজন করা হয়। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ফটোতে মাল্যদান করেন বিধান নগর পুলিশের বেশ কিছু উচ্চপদস্থ আধিকারিক। সঙ্গে আন্তরিকভাবে গেয়ে উঠলেন রবীন্দ্রসংগীতও।

আরও পড়ুন, বেহালা হাসপাতালের প্রসুতির শরীরে মিলল এবার করোনার জীবাণু, কেপিসি-র ৩ রোগীর রিপোর্টও পজিটিভ

শুক্রবার সকালে সল্টলেকের বিভিন্ন এলাকায় কবি প্রণাম অনুষ্ঠানে পুলিশকর্মীদের রবীন্দ্রসংগীত গাইতে দেখা যায়। এমনকি মমতা বন্দোপাধ্যায়ের লেখা এবং ইন্দ্রনীল সেনের সুরে করোনাকে সচেতনাতামূলক গানও বাজানো হয়। এদিন পুলিশের তরফ থেকে সকল মানুষকে লকডাউন মেনে চলার আহ্বান জানানো হয়। পাশাপাশি শুক্রবার বিকেল ৪ টে নাগাদ ক্যাথিড্রাল রোড এলাকায় রবীন্দ্রজয়ন্তী পালন করবে রাজ্য় সরকার।

আরও পড়ুন, 'সন্তানের দুধ কেনার টাকা নেই-খুব কষ্টে আছি আমরা', মাসিক বেতন দেওয়ার অনুরোধ জানাল বিগবাজারের এক স্টাফ 

উল্লেখ্য়, রবীন্দ্র জয়ন্তীতে রবীন্দ্র সঙ্গীতের সঙ্গেই চালাতে হবে করোনা সচেতনতা নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর লেখা গান। এই মর্মে আগেই কলকাতা পুলিশ-সহ সব জেলার পুলিশ সুপার এবং থানাগুলিকে নির্দেশ পাঠিয়েছিলেন রাজ্যের এডিজি আইনশৃঙ্খলা জ্ঞানভান সিংহ। তবে সমস্ত অনুষ্ঠান করতে হবে সামাজিক দূরত্ব মেনে। করোনা পরিস্থিতিতে এবার লকডাউনের জেরে রাজ্য সরকার রবীন্দ্র জয়ন্তী পালনে আড়ম্বর কমিয়ে আনা হবে। এছাড়াও অযথা রাস্তায় জমায়েত এই দিনে করা যাবে না বলেও রাজ্য সরকারের তরফে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। তা মেনেই শহরে পালিত হয়েছে কবি প্রণামের অনুষ্ঠান।  

 

 

রাজ্য়ে করোনা আক্রান্তের অর্ধেকের বেশি কলকাতার,৭০০ থেকে একদিনে ৭৫৪

করোনার থাবায় বন্ধ বাঘাযতীনের এক নার্সিংহোম, স্যানিটাইজেশনে বাঘাযতীন হাসপাতাল

করোনা উপসর্গ সহ মিজোরামের বাসিন্দার মৃত্য়ু হল কলকাতায়, ক্যানসারের জন্য় তিনি ছিলেন চিকিৎসাধীন

রোগী ফেলে পালাতে পারল না অ্যাম্বুল্যান্স, পিপিই পরা স্বাস্থ্য়কর্মীদেরকে তীব্র প্রতিবাদ নাকতলাবাসীর