শুভজিৎ পুততুন্ডঃ- বাংলায় প্রতিদিন লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্ত এবং মৃতের সংখ্য়া।  তবে পাশাপাশি করোনায় আক্রান্ত হয়ে সুস্থ হয়েছেন অনেকে। তবে প্রতিদিনের এই বেড়ে চলা করোনা সংক্রমণকে রুখতে  গত সপ্তাহে বৃহস্পতিবার থেকে কনটেনমেন্ট জোনে কঠোর লকডাউন জারি করেছে রাজ্য সরকার। আর এবার শুক্রবার  কনটেইনমেন্ট জোনগুলিতে করোনা বিধি মেনে চলা হচ্ছে কিনা, সেজন্য়  ঘুরে দেখলন বিধান নগর সিপি  মুকেশ কুমার।  


আরও পড়ুন, করোনা আক্রান্ত আরও ১৯ ব্য়াঙ্ক কর্মী, ট্রেনিং সেন্টারকে কোয়ারেন্টিন কেন্দ্র করার প্রস্তাব


বিধান নগর পুলিশ কমিশনারেট এর নতুন পুলিশ কমিশনার মুকেশ কুমার কনটেনমেন্ট জোনগুলি ঘুরে দেখলেন। তিনি জানিয়েছেন,' বিধান নগর কমিশনারেটে ১৫টি কনটেনমেন্ট জোন আছে। প্রত্যেকটাই ভিজিট করেছি যে নিয়ম গুলো আছে সেগুলো মানা হচ্ছে কিনা আমরা দেখছি। যারা এখানে আছে তাদের কোন সমস্যা হচ্ছে কিনা সেগুলো দেখছি। এছাড়া শুক্রবার আমরা প্রত্যেকটা থানা এলাকায় দেখছি যারা মাস্ক পড়ছে না, তাদের হাতে মাস্ক তুলে দিচ্ছি। তবে পরবর্তী সময়ে আরও কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।'

আরও পড়ুন, রাজ্য়ে রেকর্ড গড়ল সংক্রমণ, একদিনে কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা ১৬৯০

অপরদিকে,  পুর প্রতিনিধিদের সঙ্গে যোগাযোগ রেখে পুলিশকে কাজ করতে বলা হয়েছে। থানাগুলিকে বলা হয়েছে তাদের এলাকায় করোনা আক্রান্তদের খোঁজখবর নিয়ে পুরসভাকে জানাতে। কন্টেনমেন্ট জোনের লোকজন যাতে বাইরে বেরোতে না পারেন সেটাও নিশ্চিত করতে বলা হয়েছে। উল্লেখ্য,  সংক্রমণ বাড়তে থাকায় কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে তিন নম্বর বরোতে। মোট ছটি কনটেইনমেন্ট জোন এই এলাকায়।এখানকার তিনটি বাজার রবিবার পর্যন্ত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এগুলি হল উল্টোডাঙ্গা মুচিবাজার, ফুলবাগান কাদাপাড়া বাজার এবং বেলেঘাটা জোড়ামন্দির বাজার। 

 

 

   পূর্ব ভারতের প্রথম সরকারি প্লাজমা ব্যাঙ্ক-কলকাতা মেডিকেল, করোনা রুখতে প্রস্তুতি তুঙ্গে

  মৃত্যুর পর ২ দিন বাড়ির ফ্রিজে করোনা দেহ, অভিযোগ 'সাহায্য মেলেনি স্বাস্থ্য দফতর-পুরসভার'

 করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু এক সেনা কর্তার, ফোর্ট উইলিয়ামের শোকের ছায়া

  অঙ্গপ্রত্যঙ্গ বিকলের পরও কোভিড জয়ী ৫৪-র দুধ ব্যবসায়ী, শহরকে দিলেন এক সমুদ্র আত্মবিশ্বাস

কোভিড রোগী ফেরালেই লাইসেন্স বাতিল, হাসপাতালগুলিকে হুঁশিয়ারি রাজ্য়ের