ক্য়ানসার আক্রান্ত করোনা রোগীর রিপোর্ট নেগেটিভ।  বাড়ি ফিরবে রোগী।  কিন্তু  ছুটির দিন হাসপাতালে পৌঁছে পরিবার জানতে পারল রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এমনকি মৃতদেহও পাল না পরিবার। ভূল করে রোগীর দেহ চলে গিয়েছে করোনা আক্রান্ত মৃতদেহের মর্গে। এমনটাই ঘটেছে  কলকাতা মেডিকেলে।

 আরও পড়ুন, 'আত্মহত্য়া'র হুমকিতে অবশেষে ভর্তি, টিকল না জীবন, নতুন বিপাকে পরিবার


সূত্রের খবর, বছর চুয়াল্লিশের বেলগাছিয়ার বাসিন্দা প্রদীপ পাল মুখের ক্যান্সারে ভুগছিলেন। রাজারহাটের  টাটা মেডিকেল সেন্টার কেমো চলছিল তাঁর।  করোনা সন্দেহে ৩০ মে কলকাতা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে সুপারস্পেশালিটি ব্লকে ভর্তি করানো হয়। সুপার স্পেশালিটি ব্লক থেকে শরীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হওয়ায় তাঁকে গ্রিন বিল্ডিংয়ের স্থানান্তরিত করা হয় ৬ জুলাই। ৪০ দিন চিকিৎসা চলার পর করোনামুক্ত হন প্রদীপ বাবু। এরপর কলকাতা মেডিক্য়াল কলেজ থেকে ছুটি খবর শুনিয়ে ফোন আসে।

আরও পড়ুন, ভারী বৃষ্টিতে ফের ঝাপসা হবে দুই বঙ্গ, পার্বত্য এলাকায় ধ্বস নামার সতর্কতা


এরপরেই ছুটির কথা শুনে করোনা মুক্ত রোগীকে নিতে আসে পরিবার। বারবার ফোন করেও সাড়া না পেয়ে চিকিৎসকদের কাছে যায় পরিবার। এরপর চিকিৎসকরা আশ্বাস দিয়ে জানান, রোগী ঘুমাচ্ছে। খানিক পরেই তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হবে। তবে এর কিছুক্ষণ পর জানানো হয়,অনেক আগেই মৃত্যু হয়েছে রোগীর। ভুল করে রোগীর দেহ করোনা আক্রান্ত মৃতদেহের মর্গে চলে গিয়েছে।তাই মৃতদেহও পরিবারকে দেওয়া হবে না। রোগী পরিবার এখন দিশেহারা। পরিবারের অভিযোগ,ক্যান্সারের চিকিৎসাটুকুও পাননি প্রদীপবাবু। 

 

 

   পূর্ব ভারতের প্রথম সরকারি প্লাজমা ব্যাঙ্ক-কলকাতা মেডিকেল, করোনা রুখতে প্রস্তুতি তুঙ্গে

  মৃত্যুর পর ২ দিন বাড়ির ফ্রিজে করোনা দেহ, অভিযোগ 'সাহায্য মেলেনি স্বাস্থ্য দফতর-পুরসভার'

 করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু এক সেনা কর্তার, ফোর্ট উইলিয়ামের শোকের ছায়া

  অঙ্গপ্রত্যঙ্গ বিকলের পরও কোভিড জয়ী ৫৪-র দুধ ব্যবসায়ী, শহরকে দিলেন এক সমুদ্র আত্মবিশ্বাস

কোভিড রোগী ফেরালেই লাইসেন্স বাতিল, হাসপাতালগুলিকে হুঁশিয়ারি রাজ্য়ের