শুভজিৎ পুততুণ্ড, বারাসত- উত্তর দিনাজপুরের ইটাহার পুলিশ লকআপে বিজেপি কর্মীর মৃত্যুর তীব্র প্রতিবাদ করল গেরুয়া শিবির। বিজেপি কর্মীকে পিটিয়ে, গুলি করে খুনের অভিযোগ করলেন দিলীপ ঘোষ। শুধু তাই নয়, এই অবস্থায় রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে প্রশ্ন তুললেন তিনি। পুলিশের ভূমিকার কড়া সমালোচনাও করেন। বৃহস্পতিবার সকালে ইকোপার্কে প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে ইটাহারে ঘটনার প্রতিবাদে বড়সড় আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেন দিলীপ ঘোষ।

আরও পড়ুন-বাড়িতে থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে 'খুন', বিজেপি কর্মীর অস্বাভাবিক মৃত্যুতে চাঞ্চল্য ইটাহারে

এদিন দিলীপ ঘোষ বলেন, ''আট মাস আগে সিপিএম থেকে বিজেপিতে যোগদান করেছিলেন, ওই বিজেপি কর্মীকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায়। থানার লকআপে নিয়ে এসে তাঁকে বেধড়ক মারধর করা হয়। মারের চোট তাঁর কিডনি পর্যন্ত ফেটে যায়। পরে তাঁকে অন্য জায়গায় নিয়ে গিয়ে গুলি করে খুন করে পুলিশ। তাঁর শরীরে পাঁচটি বুলেট। রাতের মধ্য়েই ময়নাতদন্ত করার পর পরিবারকে বলা হয় বডি নিয়ে যেতে। কী কারণে ওই বিজেপি কর্মীকে খুন করা হল, বাড়ির কেউ জানে না''। 

আরও পড়ুন-পুজো দিতে গিয়ে নিখোঁজ তরুণ, ১৭০ কিলোমিটার দূরে মিলল স্কুটার ও হেলমেট

তিনি আরও বলেন, ''পুলিশ পুরোটাই বেআইনিভাবে করেছে। কী অপরাধ ছিল ওই বিজেপি কর্মীর? বাড়ির লোক কেউ জানল না। পুলিশ থাকা সত্ত্বেও কীভাবে গুলি খেল? রাতের মধ্য়ে কীভাবে ময়নাতদন্ত হল?কেউ কিছু জানেনা। এর বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ জানাবে বিজেপি। পুলিশের এ ধরনের অত্যাচার আমরা কল্পনাও করতে পারি না। ধীরে ধীরে কোন দিকে যাচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ''? প্রশ্ন দিলীপ ঘোষের।

আরও পড়ুন-যত্রতত্র পড়ে গুলির খোল, বাড়িতে ভাঙচুর, তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে উত্তপ্ত হাসনাবাদ

অন্যদিকে, জিএসটি ক্ষতিপূরণ নিয়েও মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ করেন দিলীপ ঘোষ। ইলেকশন ফান্ডে টাকার জন্য মুখ্যমন্ত্রী নাটক করছেন বলে অভিযোগ করেন তিনি। কেন্দ্রের টাকা আসছে যাচ্ছে কোথায়? মানুষ কোনও ক্ষতিপূরণ পায় না, সরকারের থেকে সহযোগিতা পায় না বলেও অভিযোগ করেন দিলীপ।