সোমবার সেভাবে নিউটাউনের বেসরকারি অফিসে উপস্থিতি দেখা গেল না। অনেকেই আবার নিজের গাড়ি নিয়ে আসছে। কিন্তু সেই সংখ্য়াটা খুবই কম। সংখ্য়া গরিষ্ঠ লোকাল ট্রেনের উপর নির্ভরশীল। এদিকে লোকাল চালু না হওয়ায় বাসের উপর পড়ছে চাপ। আবার নানা দাবিতে বেসরকারি বাসও সংখ্য়ায় কম। যাও বা আসছে, তাও সিট ভর্তি হয়ে। শেষ অবধি অফিস যাত্রা কঠিন হয়ে দাড়িয়েছে। 

আরও পড়ুন, বুদ্ধগয়া বিস্ফোরণে অভিযুক্ত জেএমবি-র আরও এক শীর্ষ নেতা গ্রেফতার, ফের বড় সাফল্য এসটিএফের


প্রসঙ্গত, রাজ্য়ের মুখ্য়মন্ত্রী জুন থেকে সব অফিসে ৭০ শতাংশ কর্মী নিয়ে কাজ করার কথা বলেছেন। কিন্তু সোমবার নিউটাউন এলাকায় সকাল থেকে হাতে গোনা অফিস যাত্রী এল। তবে সেই সংখ্য়াটা মোটেই ৭০ শতাংশ মোটেই না। বেসরকারি সব অফিসে করোনা রুখতে স্বাস্থ্য়বিধি মেনে চলা হচ্ছে। তবে যাতায়াতেই সমস্য়ায় পড়েছেন অনেকে। প্রসঙ্গত ট্য়াক্সির সংখ্য়া কিংবা ফেরি চলাচল বাড়লেও, যেহেতু লোকাল ট্রেন চলছে না, তাই যাত্রী দুর্ভোগ বাড়ছেই। এদিকে   সরকারি বাসের সংখ্যা বাড়লেও দুর্ভোগ কমেনি যাত্রীদের। কারণ  বৃহস্পতিবার  থেকে বেসরকারি বাস চললেও সেভাবে রাস্তায় নামেনি। প্রতিটি রুটে বেসরকারি বাস দু-চারটে করে রাস্তায় নেমেছে খুব কম রুটেই বেশিরভাগ বেসরকারি বাস পথে নেমেছে। 

আরও পড়ুন, স্পেশাল ট্রেনে সাধারণ যাত্রী ওঠা নিষেধ, কর্মীদের নিরাপত্তা চেয়ে চিঠি পূর্ব রেলের

তবে আনলক পর্বের প্রথমদিকে যেভাবে ঘন্টার পর ঘন্টা বাসের জন্য লাইনে দাঁড়াতে হয়েছে সরকারি বাস সংখ্যা বাড়ায় লাইনে দাঁড়াতে হচ্ছে অল্প সময় তবে লাইন লম্বাই থাকছে। বেসরকারি বাসে অতিরিক্ত ভাড়া পুলিশি নজরদারিতে না নিতে পারায় মালিকরা কম সংখ্যায় বাস চালাচ্ছে। তাই দূরের থেকে ট্রেন পথে আসা অনেকেই অফিস আসতে পারছে না। অনেকে ওলা উবের করে আসলেও সেই সংখ্য়াটাও খুব কম।

 

করোনা আবহে সুরজিৎ কর পুরকায়স্থের প্রাক্তন স্ত্রী-শাশুড়ির দেহ উদ্ধার, তদন্তে পুলিশ

 পিটিএসে নতুন করে আক্রান্ত আরও ৮, করোনা মুক্ত হয়ে কাজে ফিরলেন ১০০ পুলিশ কর্মী

বাংলাদেশ ফেরৎ ২ যাত্রী করোনা পজিটিভ, কোয়ারান্টিনের পর আক্রান্ত হওয়ায় চিন্তায় স্বাস্থ্য দফতর

 কলকাতা মেডিক্যালের ছাদের কার্নিশে বসে করোনা রোগী, সামলাতে গিয়ে নাজেহাল কর্তৃপক্ষ

দেহ রাখার জায়গা না থাকায় ডিপ ফ্রিজ বসছে মেডিকেলের মর্গে, মৃতদেহ 'ম্যানেজমেন্ট'-এ নিয়োগ অ্যাসিস্ট্যান্ট