কেন্দ্রের নির্দেশিকা মেনেই রাজ্যে আংশিকভাবে সরকারি অফিস খোলার সিদ্ধান্ত নিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ আগামী ২০ এপ্রিল থেকে অফিসে আসতে পারবেন সরকারি আধিকারিকরা৷ প্রত্য়েকদিন এক সঙ্গে সবাই নয়, পালা করে একদিন অন্তর অফিস করবেন।

আরও পড়ুন, করোনা আক্রান্ত সদ্য়োজাতের মা-বাবা, মাত্র ২১ দিনেই নবজাতককে দেখতে হল কঠোর পৃথিবী

 মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নবান্নে জানিয়েছেন,সরকারি অফিস খোলার ক্ষেত্রে ডেপুটি সেক্রেটারি ও পরবর্তী উচ্চপর্যায়ের আধিকারিকদের আপাতত হাজিরা দিতে হবে। আগামী ২০ এপ্রিল থেকে অফিসে আসতে পারবেন তাঁরা। তিনি আরও জানিয়েছেন, কেন্দ্রীয় সরকার সর্বাধিক ৩০ শতাংশ পর্যন্ত অফিসে হাজিরার অনুমতি দিয়েছে। যদিও লকডাউনের মধ্যে আগেই রাজ্যে খুলে দেওয়া হয়েছে মিষ্টির দোকান,ফুল বাজার ও চা বাগান৷ সঙ্গে এবার কেন্দ্রের ডাকে সাড়া দিয়ে খুলছে জুটমিল। 

আরও পড়ুন,করোনা আক্রান্ত চিকিৎসক, রোগী ভর্তি বন্ধ হওয়ার আশঙ্কা এবার ন্যাশনাল মেডিক্যালে

অপরদিকে, রাজ্য়ে জুটমিল খোলার পর কাজ ফিরে পেয়ে মুখ্যমন্ত্রীর উদ্যোগে খুশি বারাকপুর শিল্পাঞ্চলের শ্রমিকরা৷ তবে লকডাউন চলাকালীন স্বাস্থ্যবিধি মেনে জুটমিলে উৎপাদন প্রক্রিয়ায় অংশ নিতে প্রস্তুত শ্রমিকরা৷ আপাতত রাজ্যে সব জুটমিলগুলিই চালু করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ১৫ শতাংশ শ্রমিকদের দিয়ে লকডাউন চলাকালীন জুটমিলে শুরু হবে উৎপাদন। সপ্তাহের কাজের দিনগুলিতে ঘুরিয়ে ফিরিয়ে কাজ পাবেন জুটমিলের সব শ্রমিকরা। 




আরও পড়ুন, লকডাউনে কলকাতায় আটকে পড়ে আত্মহত্য়ার চেষ্টা, হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ভিন রাজ্য়ের ইঞ্জিনিয়ার

করোনার কোপে বন্ধ কলকাতার আস্ত একটি হাসপাতাল, ১০০ ছাড়িয়ে চিকিৎসক-নার্স সহ কোয়ারেন্টাইনে
 
পার্ক সার্কাসের বেসরকারি হাসপাতালে প্রৌঢ়ের মৃত্য়ু, করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসতেই অভিযোগ তুলল পরিবার