শনিবার শহর জুড়ে চলছে আগস্ট এর দ্বিতীয় লকডাউন। কলকাতা শহরের বিভিন্ন জায়গায় পুলিশ চালাচ্ছে নাকা চেকিং। এই অবস্থাতেই কলকাতা পুলিশের একটা বিচিত্র উঠে এল। রাস্তার মোড়ে মোড়ে একাধিক অ্য়াম্বুল্য়ান্স থাকা সত্বেও বাইক দুর্ঘটনায়  জখম কিশোরের জন্য মিলল না কোনও অ্য়াম্বুল্য়ান্স। অসহায় পরিবার সরকারি হাসপাতালে নিতে চরম ভোগান্তির শিকার।

আরও পড়ুন, আজ সম্পূর্ণ লকডাউন, ২৮ টি জায়গায় গার্ডরেল বসিয়ে নাকা-তল্লাশি চালাচ্ছে কলকাতা পুলিশ


জানা গিয়েছে, বছর ১৪-র এক  কিশোর শুক্রবার বাইকে অ্যাকসিডেন্টে গুরুতর আহত হয়। তাকে পরিবারের লোকেরা প্রথম অবস্থায় নিয়ে গিয়েছিল  নীলরতন সরকার হাসপাতালে। কিন্তু পরিস্থিতি খারাপ হলে তাকে রেফার করা হয় আর জি কর হসপিটালে। এদিকে শনিবার লকডাউন। কিন্তু  আহত সেই কিশোরকে নিয়ে যাওয়া নিয়ে  নিতে চরম ভোগান্তির শিকার হয় পরিবার।

আরও দেখুন, লকডাউনে দোকান খোলার শাস্তি, লটারি বিক্রেতাকে আটক করল ইকোপার্ক থানার পুলিশ

পরিবারের লোকজনদের নিয়ে যাওয়ার জন্য একটা  রিক্সা-ভ্যান ব্যবস্থা করা হয়।  তারপর সারা কলকাতা রাস্তা চষে বেরিয়ে নিয়ে আসে আর জি কর হাসপাতালে। কিন্তু  প্রশ্ন উঠছে নাকা চেকিংয়ে শনিবার সকালে পুলিশের কি একবারও চোখ গেল না এই আহত কিশোরের দিকে। কারণ কলকাতা শহরের মোড়ে মোড়ে কলকাতা পুলিশের অ্য়াম্বুল্য়ান্স দাঁড়িয়ে থাকে। সেখান থেকেও কি একবারের জন্য পরিষেবা পাওয়া যেত না। দীর্ঘক্ষন পরিবারের লোক জনেরা রিকশা-ভ্যানে করে সেই আহত কিশোরকে নিয়ে ভর্তি করল আর জি কর হসাসপাতাল।এমনকি রাস্তায় চলতে চলতে একটা সময় ভ্য়ানের টায়ার বাস্ট হয়ে যায়। সেই খারাপ ভ্যান নিয়েই নিয়ে গেল আরজিকরে। তারপর ভর্তি করা হয়। কলকাতা পুলিশের চোখ থেকে কীভাবে এই করুন দৃশ্য এড়িয়ে গেল সেটা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন।

 

 

ভুয়ো টেস্টের ফাঁদে পড়ে করোনায় মৃত্যু এক ব্য়াক্তির, গ্রেফতার প্রতারণা চক্রের ৩ জন

করোনায় ফের ১ এসবিআই কর্মীর মৃত্য়ু, মৃতের পরিবারকে চাকরি দেওযার দাবিতে ব্যাঙ্ক কর্মীরা

   পূর্ব ভারতের প্রথম সরকারি প্লাজমা ব্যাঙ্ক-কলকাতা মেডিকেল, করোনা রুখতে প্রস্তুতি তুঙ্গে

  মৃত্যুর পর ২ দিন বাড়ির ফ্রিজে করোনা দেহ, অভিযোগ 'সাহায্য মেলেনি স্বাস্থ্য দফতর-পুরসভার'

  অঙ্গপ্রত্যঙ্গ বিকলের পরও কোভিড জয়ী ৫৪-র দুধ ব্যবসায়ী, শহরকে দিলেন এক সমুদ্র আত্মবিশ্বাস

কোভিড রোগী ফেরালেই লাইসেন্স বাতিল, হাসপাতালগুলিকে হুঁশিয়ারি রাজ্য়ের