ধাপে ধাপে লকডাউন ওঠার কথা জানালেন রাজ্য়ের মুখ্য়মন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়। এদিকে ৩ মে-র পর থেকে লকডাউন তুলে নেওয়া হবে কিনা, তা এখনও নিশ্চিত নয়। বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে ২৭শে এপ্রিল বৈঠক করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তবে বিশেষ বিশেষ ক্ষেত্রে এখনই শর্তসাপেক্ষে ছাড়ের ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী। সেইভাবেই ধীরে ধীরে আরও ছাড়ের ঘোষণা করে লকডাউন তুলে নেওয়া হোক বলে জানাচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।
 

আরও পড়ুন, রাজ্য়ের করোনা পরিস্থিতি 'চূড়ান্ত বিরক্তিকর', মুখ্যমন্ত্রীকে খোলা চিঠি পাঠিয়ে দাবি প্রবাসী চিকিৎসকদের

 

 সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমে রাজ্য়ের মুখ্য়মন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায় বলেন  ৪ঠা মে-র  পর থেকে  ধীরে ধীরে তুলে নেওয়া হোক লকডাউন। তবে পরিস্থিতি তার আগে নিয়ন্ত্রণে আসা উচিত। মুখ্য়মন্ত্রী জানিয়েছেন,  ৪ঠা মের পর দু সপ্তাহ সময় নিয়ে লকডাউন তুলে নেওয়া উচিত। তিনি আরও জানিয়েছেন, তিন ধাপে লকডাউন তুলে নেওয়া উচিত। আতঙ্ক রুখতে কেন্দ্রের আরও সতর্ক হওয়া উচিত বলে জানিয়ে দিয়েছেন মুখ্য়মন্ত্রী। ৪ঠা মে-র পরের সপ্তাহে ৫০ শতাংশ ও তার পরের সপ্তাহে বাকি ৫০ শতাংশ বিধিনিষেধ তুলে নেওয়া হোক। 

 

আরও পড়ুন, ফের ভাইরাসের টার্গেটে কলকাতা মেডিক্য়াল, ৪ স্বাস্থ্যকর্মী সহ নতুন করে করোনা আক্রান্ত ৫

 

অপরদিকে, পশ্চিমবঙ্গে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা নিয়ে কেন্দ্র ও রাজ্য দ্বন্দ্ব প্রকট হচ্ছে। উল্লেখ্য়, ইতিমধ্য়েই পশ্চিমবঙ্গের করোনা পরিস্থিতি 'চূড়ান্ত বিরক্তিকর'দাবি করে মুখ্যমন্ত্রীকে খোলা চিঠি পাঠিয়েছেন  প্রবাসী চিকিৎসকরা। তাঁরা চিঠিতে জানিয়েছেন, 'সঠির পরিসংখ্যান না জানানো হলে তাতে দুটি অসুবিধা হতে পারে। প্রথমত, মানুষ এই মহামারির প্রকৃত ভয়াবহতা বুঝতে পারবেন না। দ্বিতীয়ত, এর মোকাবিলায় সঠিক পথও অজানা থেকে যাবে।'

 

 

 করোনা সচেতনতায় মৌলালি ও বেহালায় মুখ্যমন্ত্রী, লকডাউন সফলে এলাকাবাসীকে ধন্যবাদও জানিয়েছেন তিনি

  মেডিক্যালের ছোঁওয়া মানিকতলায়, করোনা আক্রান্তের সংস্পর্শে আসায় দমকল কেন্দ্রের ৩২ কর্মী কোয়রান্টিনে

বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্য়া, মেডিক্য়ালে চিকিৎসক ও সংক্রামিত রোগী থেকে কোয়ারেন্টিনে অন্তত আরও ৪৫

সঙ্ঘাত শেষেও ঘরবন্দি, করোনা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে মুখ্যসচিবকে চিঠি কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের