করোনা আতঙ্কে  রবিনসন স্ট্রিটের ছায়া এবার আলিপুর বডিগার্ড লাইনে। করোনায় আক্রান্ত হয়ে দাদার মৃত্য়ু হয়েছে ভেবে, কাউকে কিছু জানাননি ভাই। এদিকে দেহে পচন ধরা শুরু করেছিল। আর দাদার দেহ আগলে দুই দিন ধরে বসে ছিলেন ভাই। শেষমেষ আলিপুর বডিগার্ড লাইনের ক্যান্টিনের ভিতর থেকে পচাগলা দেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

আরও পড়ুন, প্রয়াত অধ্যাপক আনিসুজ্জামান, শোকস্তব্ধ দুই বাংলা


বৃহস্পতিবার ময়নাতদন্তের পর চিকিৎসকরা পুলিশকে জানিয়েছেন, সেরিব্রাল হ্যামারেজের কারণে সমীর সিংহ নামে ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে।  বাঁকুড়ার বাসিন্দা সমীর ও রতন দুই ভাই মিলে কাজ করতেন আলিপুর বডিগার্ড লাইনের ওই ক্যান্টিনে। বুধবার রাতে সমীরের দেহের উপর বালিশ চাপা দেখে পুলিশের সন্দেহ হয়। এদিকে মৃতর ভাই রতনের মানসিক অবস্থা স্থিতিশীল নয়। বুধবার রাতে দাদার দেহ উদ্ধারের পর ওই যুবক পুলিশকে জানান, তিনি পাশের ঘরেই ছিলেন। দাদার দেহ থেকে এত দুর্গন্ধ বের হচ্ছিল যে, তিনি দেহটির মুখে বালিশ চাপা দেন। দাবি করেন, দাদার জ্বর এসেছিল। এর পরেই দাদা অসুস্থ হয়ে মারা যান। যদিও ওই ব্যক্তির করোনা হয়েছিল কি না, সেই বিষয়টি স্পষ্ট জানা যায়নি।

আরও পড়ুন, ধেয়ে আসছে ভয়ানক ঘূর্ণিঝড় '‌আমফান', গাঙ্গেয় উপকূলের জেলাগুলিতে অতিভারী বৃষ্টিপাতের সতর্কতা


অপরদিকে, চিকিৎসকরা পুলিশকে জানিয়েছেন, মৃত্যুর এক ঘন্টা পর থেকে দেহে করোনার ভাইরাস নিষ্ক্রিয় হয়ে যায়। তাই পচাগলা দেহের করোনা পরীক্ষা করে লাভ নেই। এবং কোনও আত্মীয় মৃতদেহটি গ্রহণ করে শেষকৃত্য করতে রাজি হননি। ইতিমধ্যেই আলিপুর বডিগার্ড লাইনের একাধিক বাসিন্দা করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তাই আতঙ্ক ছড়িয়েছে তাদের মনেও। যদিও ওই যুবকের শরীরে কোনও উপসর্গ নেই। তবু তাকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হবে কি না, তা নিয়ে চিন্তাভাবনা চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

 

কোভিড হাসপাতালে স্বাভাবিক মৃত্য়ুতেও পরিবার চাইলে সৎকার করবে কলকাতা পৌরসভা, জানালেন ফিরহাদ

করোনা আক্রান্ত প্রাণ হারালেন এবার রাজ্যের এক আইনজীবী, এদিকে আইসোলেশনে তাঁর স্ত্রী

কোভিড পজিটিভ হয়ে মৃত্য়ু প্রখ্যাত ইতিহাসবিদ হরিশঙ্কর বাসুদেবনের

 বেহালা হাসপাতালের প্রসুতির শরীরে মিলল এবার করোনার জীবাণু, কেপিসি-র ৩ রোগীর রিপোর্টও পজিটিভ

রোগী ফেলে পালাতে পারল না অ্যাম্বুল্যান্স, পিপিই পরা স্বাস্থ্য়কর্মীদেরকে তীব্র প্রতিবাদ নাকতলাবাসীর