Asianet News Bangla

'হিন্দু বাঙালি উদ্বাস্তুকে ভারতীয় মনে করে BJP', নিশীথের নাগরিকত্ব ইস্যুতে কোর্টের চ্যালেঞ্জ সায়ন্তনের


ইতিমধ্যেই নাগরিকত্ব ইস্যুতে শিরোণামে  কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিশীথ প্রামানিক। রবিবার  রিপুণ বোরা-ব্রাত্য বসুর নাম না করেই চা চক্রে এসে 'প্রমাণ থাকলে সুপ্রিম কোর্টে যাক',  চ্যালেঞ্জ ছুড়লেন বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু।  

Sayantan Basu has challenged to go to the Supreme Court if there is evidence on Nisith Pramaniks citizenship issue RTB
Author
Kolkata, First Published Jul 18, 2021, 5:10 PM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

'প্রমাণ থাকলে সুপ্রিম কোর্টে যাক' নিশীথের নাগরিকত্ব ইস্যুতে চ্যালেঞ্জ সায়ন্তনের। শুভেন্দুর বাড়িতে সিআইডি কেন এবং রাজ্যে ভুয়ো ভ্যাকসিন সব বিতর্কিত বিষয়েই এদিন তিনি ঝড় তুললেন সায়ন্তন। রবিবার সকালে লেকটাউন কালিন্দী বাজারে চা চক্রে উপস্থিত হয়েই তোপ দাগলেন বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু।  

'নিশীথ প্রামাণিক বাংলাদেশের নাগরিক'- রিপুণ বোরা, ব্রাত্য বসু

আরও পড়ুন, মোদী-যোগী সহ ৭ রাজ্যের জায়ান্ট স্ক্রিনে চলবে মমতার ভাষণ, ২১ জুলাই বড় পদক্ষেপ তৃণমূলের

 


ইতিমধ্যেই নাগরিকত্ব ইস্যুতে শিরোণামে  কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিশীথ প্রামানিক। সদ্য তিনি কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর তকমা পেয়েছেন। আর তারই মধ্যেই বাংলা থেকে জয়ী বিজেপি সাংসদ বাংলাদেশের নাগরিক বলে দাবি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী মোদীকে চিঠি লিখেছেন অসম প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি তথা রাজ্যসভার সাংসদ রিপুণ বোরা। আর তারপর তোপ দেগেছেন রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী তথা তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ মুখ্যপাত্র ব্রাত্য বসু। তিনি রিপুণ বোরার চিঠিটি টুইটারে শেয়ার করে তার সঙ্গে লিখেছেন, রাজ্যসভার সাংসদ রিপুণ বোরা সঠিক প্রশ্নই তুলেছেন। বহু সাংবাদমাধ্যমে দেখা গিয়েছে যে, নিশীথ প্রামাণিক বাংলাদেশের নাগরিক। এমন লোককে মন্ত্রীর করার আগে কি কিছুই খতিয়ে দেখা হয়নি। ভুলে গেলে চলবে না, এই নিশীথের বিরুদ্ধে একাধিক অপরাধমূলক মামলা চলছে। লজ্জাজনক।'

 

 

আরও পড়ুন, 'আমার বাবা একজন যোদ্ধা', ভুল খবর না ছড়ানোর অনুরোধ সাধন কন্যা শ্রেয়ার

 

 

'নিশীথ প্রামানিক হিন্দু উদ্বাস্তু-হিন্দু বাঙালি উদ্বাস্তুকে ভারতীয় মনে করে BJP'-সায়ন্তন বসু
 
রবিবার, রিপুণ বোরা-ব্রাত্য বসুর নাম না করেই সায়ন্তন বসু চা চক্রে এসে নিশীথ প্রামাণিক প্রসঙ্গে বললেন, 'যারা অভিযোগ করছেন, তাঁদের কাছে যদি প্রমাণ থাকে, তাদের কাছে যদি প্রয়োজনীয় তথ্য থাকে, তারা নির্বাচন কমিশনে যেতে পারেন। হাইকোর্টে-সুপ্রিম কোর্টে যেতে পারেন। তাঁরা ভারতের রাষ্ট্রপতির কাছে যেতে পারেন। নিশীথ প্রামানিক ভারতের নাগরিক, তর্কের খাতিরে যদি ওই দাবি মেনে নেওয়া হয়, তাহলে নিশীথ প্রামানিক হিন্দু উদ্বাস্তু। ভারতীয় জনতা পার্টি প্রত্যেক হিন্দু বাঙালি উদ্বাস্তুকে ভারতীয় মনে করে। তারপরে তো সিএএ সিটিজেনশিপ আমেন্ডমেন্ট অ্যাক্ট পাস হয়ে গেছে। যাতে রেট্রোস্পেকটিভ এফেক্টে নাগরিকত্ব দেওয়া হচ্ছে। ফলে এই প্রশ্ন ওঠে না। এই প্রশ্ন তোলার কোনও যৌক্তিকতা নেই। আইনত দিক থেকে নেই, বাস্তবিক দিক থেকেও নেই।  আমরা এই অভিযোগের কোনো গুরুত্ব দিচ্ছি না।'

আরও পড়ুন, 'কর্ম করো-ফলের ব্যাপারে ভেবো না', রাজ্যপালের দিল্লি সফর ঘিরে জল্পনা তুঙ্গে

 


' শুভেন্দু অধিকারী যখন তৃণমূলে ছিলেন তখন সিআইডি হানা দিত না'-সায়ন্তন  

শুভেন্দু অধিকারীর বাড়িতে সিআইডি প্রসঙ্গে সায়ন্তন বসু বলেছেন,' শুভেন্দু অধিকারী যখন তৃণমূলে ছিলেন তখন সিআইডি হানা দিত না তিনি যখন রাজ্য সরকারের মন্ত্রী ছিলেন তখন সবার সঙ্গে ভালো সম্পর্ক উনার দলের নেতাদের সঙ্গে তখন সিআইডি হানা দিত না বিরোধীদলের নেতা এখন রাজ্যে এখন তার উপরে সিআইডি আক্রমণ হচ্ছে পরিষ্কার এখন হুইচ হান্টিং চলছে সিআইডি দিয়ে  বিজেপিকে চমকানো ধমকানোর  চেষ্টা করেন তাহলে কিভাবে তৃণমূল দের চমকানো যায় ভালোভাবে জানি প্রয়োজনে সেটুকু চমকে ধমকে দেওয়া হবে।' বাদ যায়নি আচমকা রাজ্যপালের দিল্লি সফর নিয়েও। দিল্লি যাওয়া প্রসঙ্গে সায়ন্ত বসু বলেছেন,'গভর্নর তার দায়িত্ব পালন করতে গেছেন। তিনি সাংবিধানিক প্রধান, তিনি কেন্দ্রীয় সরকারের এখানে প্রতিনিধি।  ভারতের প্রধানমন্ত্রী, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বা রাষ্ট্রপতির সঙ্গে দেখা করতে যাবেন। তিনি তার কাজ করছেন।'

আরও পড়ুন, 'হয় ৬ আত্মীয়কে শিক্ষকের চাকরি, না হলে হত্যালীলা'- হিজবুল মুজাহিদিনের কি খেয়ে বসে কোনও কাজ নেই

 

 


' এখানে ভুয়ো আইএএস, ভুয়ো ডাক্তার সব ঘুরে বেড়াচ্ছে'-সায়ন্তন বসু

অপরদিকে এদিন রেলের মাধ্যমে ভ্য়াকসিন দেওয়া প্রসঙ্গে বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু বলেছেন,  'আমরা আবেদন করছি যে রেল ,রাজ্য সরকার ভ্যাকসিন দুর্নীতি করছে। ভুয়ো ভ্যাকসিন দিচ্ছে । এখানে ভুয়ো আইএএস, ভুয়ো ডাক্তার সব ঘুরে বেড়াচ্ছে। রাজ্য সরকারের দেওয়া ভ্যাকসিনের উপরে মানুষ বিশ্বাস করতে পারছেন না । আমরা কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে আবেদন করব। রেলের একটা বিশাল ইনফ্রাস্ট্রাকচার আছে, সেই সমস্ত জায়গা থেকে যাতে সাধারণ মানুষকে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়। বেসরকারি হাতে ভ্যাকসিন ছাড়লে, সেটা খোলা বাজারে কালোবাজারিতে কালোবাজারে চড়া দামে বিক্রি হবে। সাধারণ মানুষ ফ্রিতে ভ্যাকসিন কেন্দ্রীয় সরকার দিচ্ছে, সেই ফ্রি ভ্যাকসিন থেকে বঞ্চিত হবেন। তার জন্য রেল এগিয়ে আসুক কেন্দ্রীয় সরকার প্রত্যক্ষভাবে ভ্যাকসিন দেওয়ার ব্যবস্থা করুক।

আরও পড়ুন, ভাইরাসের ভয় নেই তেমন এখানে, ঘুরে আসুন ভুটানে  

আরও দেখুন, মাছ ধরতে ভালবাসেন, বেরিয়ে পড়ুন কলকাতার কাছেই এই ঠিকানায়  

আরও পড়ুন, রাজ্য়ের সর্বনিম্ন সংক্রমণ এই জেলায়, বৃষ্টিতে হারাতেই পারেন পুরুলিয়ার পাহাড়ে

আরও দেখুন, বৃষ্টিতে বিরিয়ানি থেকে তন্দুরি, রইল কলকাতার সেরা খাবারের ঠিকানার হদিশ  

আরও দেখুন, কলকাতার কাছেই সেরা ৫ ঘুরতে যাওয়ার জায়গা, থাকল ছবি সহ ঠিকানা 

আরও পড়ুন, বনগাঁ লোকাল নয়, জাপানে ঠেলা মেরে ট্রেনে তোলে প্রোফেশনাল পুশার, রইল পৃথিবীর আজব কাজের হদিস 

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios