ফের বিতর্কে হাওড়ার টিকিয়াপাড়া। বিজেপির পোস্ট করা ভিডিয়ো বলছে, সামাজিক দূরত্ব না মেনে হাওড়ার টিকিয়াপাড়ায় ভিড় জমিয়েছে মানুষ। খোদ পুলিশের গাড়ি সামনে থেকে এই মিছিলে অংশ নিয়েছে। যদিও বিজেপির পোস্ট করা এই ভিডিয়ো যাচাই করেনি এশিয়ানেট নিউজ বাংলা। 

— BJP Bengal (@BJP4Bengal) May 3, 2020 

রাজ্য়ের সাম্প্রতিক চিত্র বলছে, কদিন আগেই পুলিশ পিটিয়ে উত্তাল হয়েছে হাওড়ার টিকিয়াপাড়ার বেলিলিয়াস রোড। লকডাউনে ঘরে থাকতে বলায় সেদিন পুলিশের ওপর হামলা চালায় স্থানীয়রা। হামলাকারীদের ইটে মাথা ফাটে দুই পুলিশকর্মীর। সেই ছবি ভাইরাল হয়ে যায় সোশ্য়াল মিডিয়ায়। সংখ্যালঘু এলাকায় পুলিশকে মারধরের ঘটনায় অস্বস্তি  বাড়ে মুখ্যমন্ত্রীর। এই ঘটনাকে মমতার সংখ্যালঘু তোষণের রাজনীতি বলে মন্তব্য় করেন বিজেপির নেতারা।  

প্রধানমন্ত্রীর গরিব কল্যাণ যোজনার বিনামূল্যে রেশন পাক রাজ্য়বাসী, ফের রাজ্য়পালের টুইট ঘিরে বিতর্ক..

এদিনের ভিডিয়োতে অবশ্য় দেখা গিয়েছে অন্য চিত্র। যাতে দেখা গিয়েছে সামনে হেঁটে যাচ্ছে পুলিশ। তাদের পিছনে যাচ্ছে একদল লোক। যাদের মুখে মাস্ক থাকলেও, তাদের মধ্যে সামাজিক কোনও দূর্ত্ব নেই।  অনেকেই পুলিশকে লক্ষ্য করে ফুল ছুড়ছেন। সূত্রের খবর, এদিন এলাকায় পিস র‍্যালির আয়োজন করা হয়েছিল। যাতে বহু মানুষের সমাগম ঘটে। এলাকায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা হচ্ছে কি না, তা খতিয়ে দেখার জন্য অন্তত ২০০ জনকে নিয়ে একটি কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির সদস্যদের দেওয়া হয় টি-শার্টও। 

সংসদে মোদী সরকারের বিরুদ্ধে কী বলেছিলেন, করোনা নিয়ে মহুয়াকে পাল্টা বিদ্বজ্জনদের

জানা গিয়েছে, রবিবার দুপুরে টিকিয়াপাড়ায় গিয়েছিলেন পুলিশকর্মীরা। ডিসি হেড কোয়ার্টার প্রিয়ব্রত রায়ের দাবি, সেই সময়ে বেশ কয়েকজন তাঁদের দেখে এগিয়ে আসেন। ভিড় জমায় তাঁদের ঘিরে। এই ঘটনারই বেশ কয়েকটি ছবি এবং ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। যদিও হাওড়া সিটি পুলিশের এসিপি সেন্ট্রাল অলোক দাশগুপ্ত বলেন, আমরা একটা কোভিড জিরো ভলান্টিয়ার টিম তৈরি করেছি। ১০০ সদস্য রাখা হয়েছে ওই টিমে।  সবজি বিক্রেতা বা ফল বিক্রেতারা যাতে রাস্তায় এসে ভিড় না বাড়ান, সেই দেখাশোনা করবে এই টিম। হাওড়ার টিকিয়াপাড়া ফাঁড়ি থেকে বেলিলিয়াস রোড পর্যন্ত এই র‍্যালি হয়।