সোমবার শহর ও শহরতলিতে ফের বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। আকাশ সারাদিনই মেঘলা হয়ে থাকবে। হাওয়া অফিস সূত্রে খবর, সোমবার কলকাতায়  সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৫.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি কম। এবং সকাল ৮ টা ৩৪ মিনিটে শহরেরএই মুহূর্তের তাপমাত্রা ২৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আরও পড়ুন, 'যত সিট-তত যাত্রী' নিয়েই কী চলবে মেট্রো, সোমবার নবান্নের বৈঠকেই মিলবে উত্তর


উল্লেখ্য,শনিবার রাত থেকে থেকেই কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গে  বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টি শুরু হয়। উত্তর ও দক্ষিণ কলকাতার একাধিক জায়গায় জল জমে যায়। তবে ফের রবিবার কয়েক ঘণ্টার প্রবল বৃষ্টিতে ভেসে যায় কলকাতা-সহ গাঙ্গেয় বঙ্গের বিস্তীর্ণ এলাকা। আলিপুর আবহাওয়া দফতরের খবর, কোনও ঘূর্ণাবর্ত বা নিম্নচাপ নয়, কলকাতা-সহ গাঙ্গেয় বঙ্গের আকাশে একাধিক বজ্রগর্ভ মেঘপুঞ্জ সৃষ্টির ফলেই এই প্রবল বৃষ্টি। এক-একটি মেঘপুঞ্জের উচ্চতা ছিল ৭ থেকে ৯ কিলোমিটার। তার ফলেই ঘনঘন বাজ পড়েছে। ভারী বৃষ্টি হয় উত্তরবঙ্গেও। উল্লেখ্য, শনিবার ভারী বৃষ্টির সঙ্গে বজ্রপাতে রাজ্যে মৃত্যু হয়েছে ৬ জনের। মৃতদের মধ্যে ৩জন সাগরদিঘীর বাসিন্দা ও বাকি ৩ জন ভরতপুর এলাকার বাসিন্দা।  

আরও পড়ুন, লকডাউনে সবদিক থেকে কলকাতা কতটা এগিয়ে, টিআরএ রিসার্সে উঠে এল ১৬ শহরের রিপোর্ট

হাওয়া অফিস সূত্রে খবর, সোমবার কলকাতায়  সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৫.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি কম।  এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৪.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশী। বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বাধিক ৯৭ শতাংশ। আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ ন্যূনতম ৭০ শতাংশ। রবিবার কলকাতায়  সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৪.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাভাবিকের থেকে দুই ডিগ্রি কম।  এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৩.৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশী। বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ ছিল সর্বাধিক ৯৭ শতাংশ। আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ ছিল ন্যূনতম ৬৮ শতাংশ। শনিবার কলকাতায়  সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৭.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাভাবিকের থেকে এক ডিগ্রি বেশি।  এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৫.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। স্বাভাবিকের থেকে তিন ডিগ্রি বেশী। বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বাধিক ৯০ শতাংশ। আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ ন্যূনতম ৫৪ শতাংশ।  

আরও পড়ুন, করোনা আবহে ভার্চুয়াল সমাবেশের পরিকল্পনা, সফল করতে ৩ জুলাই বৈঠক ডাকলেন মমতা


অপরদিকে,  নিম্নচাপ অক্ষরেখা পাঞ্জাব থেকে পূর্ব বিহার পর্যন্ত বিস্তৃত। এর প্রভাবে দক্ষিণা বাতাসে ভর করে বঙ্গোপসাগর থেকে প্রচুর জলীয় বাষ্প ঢুকছে পূর্ব ও উত্তর পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলিতে। এর প্রভাবেই অতি ভারী বৃষ্টি উত্তরবঙ্গ সহ উত্তর পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলিতে। এই কয়েকদিন উত্তরবঙ্গের দার্জিলিং সহ ওপরের পাঁচ জেলাতে ছিল ভারী বৃষ্টির সতর্কতা। অতি ভারী বৃষ্টি হয়েছে কোচবিহার, জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ারের কিছু এলাকায়। ২০০ মিলিমিটার বা তার বেশি বৃষ্টিপাতের আশঙ্কাও ছিল। ভারী বৃষ্টি হয়েছে মালদা, উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুরে।   উত্তরবঙ্গের বাকি জেলা দার্জিলিং, কালিম্পং, মালদা ,উত্তর ও দক্ষিণ দিনাজপুরে মাঝারি বৃষ্টি হয়েছে। তবে  হাওয়া অফিস জানিয়েছে,এবার বৃষ্টি কমবে উত্তরবঙ্গে। বিক্ষিপ্ত হালকা বৃষ্টির সম্ভাবনা দক্ষিণবঙ্গে। ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা বিক্ষিপ্তভাবে পশ্চিমের জেলাগুলিতে।   বীরভূম, মুর্শিদাবাদ, নদীয়া, উত্তর ২৪ পরগনায় দু-এক পশলা বৃষ্টির পূর্বাভাস।

 

 

রাজ্য়ে মৃতের সংখ্যা ৬০০ ছাড়াল, ভ্য়াক্সিনের অপেক্ষায় বিশ্ব

কোভিড রোগী ফেরালেই লাইসেন্স বাতিল, হাসপাতালগুলিকে হুঁশিয়ারি রাজ্য়ের

 কলকাতায় একদিনে চিহ্নিত প্রায় ২০০ বাড়ি, কনটেইনমেন্ট জোন বৃদ্ধির কারণ বললেন মুখ্যসচিব

 করোনায় সুরক্ষাবিধি নিয়ে বিক্ষোভের জের, বদলি ১৩ পুলিশকর্মীর

করোনা আক্রান্ত নিজাম প্যালেসের এক সিবিআই আধিকারিক, স্যানিটাইজ করা হল পুরো অফিস

করোনা আবহে সুরজিৎ কর পুরকায়স্থের প্রাক্তন স্ত্রী-শাশুড়ির দেহ উদ্ধার, তদন্তে পুলিশ

দেহ রাখার জায়গা না থাকায় ডিপ ফ্রিজ বসছে মেডিকেলের মর্গে, মৃতদেহ 'ম্যানেজমেন্ট'-এ নিয়োগ অ্যাসি