"এভরিথিং ইউ নিড, নাথিং ইউ ডোন্ট"- এমন জোরদার মন্তব্য টুইটারে লিখলেন পোকো ইন্ডিয়ার জেনারেল ম্যানেজার সি মনমোহন। মনে করা হচ্ছে রিয়ালমি ও আইকিউওও সংস্থার উদ্দেশ্যেই মনমোহনের এ হেন মন্তব্য। যদিও টুইটারে তিনি কারো নাম করে কিছুই বলেননি। তাঁর টুইটে 'নাথিং' শব্দটির 'টি' অক্ষরটির জায়গায় লেখা আছে ৫ আর  আর শেষ 'জি' অক্ষরটিকেও জোরালো করা হয়েছে। অর্থাৎ ৫ আর জি অক্ষর দুটিকে হাইলাইট করা হয়েছে ইচ্ছাকৃতভাবে।  এই দুটি অক্ষরের ওপর জোর দেওয়াতে বাক্যটি যেমন দাঁড়াচ্ছে তা হল এইরকম- এভরিথিং ইউ নিড, ৫জি ইউ ডোন্ট'। শব্দের মারপ্যাচ এখানেই।  

এখনও এই দেশে ৫জি নেটওয়ার্ক চালু হয়নি অথচ রিয়ালমি ও আইকিইউওও এর মধ্যেই ৫জি ফোন লঞ্চ করেছে ভারতে। আমেরিকা, চিন, সাউথ কোরিয়া প্রভৃতি দেশে ইতিমধ্যেই ৫জি নেটওয়ার্ক বাণিজ্যিকভাবে চালু হয়ে গেছে। ভারতে ৫জি কবে থেকে চালু হবে সে ধারণা এখনও স্পষ্ট হয়নি কারো কাছেই। এই অস্পষ্ট পরিস্থিতিতে যেখানে প্রয়োজনীয় পরিকাঠামো নেই, রিয়ালমি এক্স ৫০ প্রো ও আইকিউউ ৩ এই দুটি নতুন ৫জি ফোন এসে গেছে ভারতের বাজারে। আর ৫জি ফোন লঞ্চ করার ব্যাপারে অহেতুক উন্মাদনাতেই আপত্তি পোকো ইন্ডিয়ার।

শোনা গিয়েছে শাওমি এই বছরে তাদের ৫জি ফোন লঞ্চ করার পরিকল্পনা স্থগিত করেছে। পোকো এফ২ লঞ্চ হওয়ার কথা এই বছরের শেষ দিকে এবং এই ফোনেও ৫জি নেটওয়ার্ক থাকছে না। 

রিয়ালমি এবং আইকিউওও ব্র্যান্ডের এই নতুন দুটি ফোন নিয়ে আর কোনো আপত্তি নেই কারোরই। কেবল ৫জি নেটওয়ার্ক নিয়েই বিতর্ক দানা বেঁধেছে। এই দুই ফোনের স্পেসিফিকেশন অসাধারণ।  দুটি ফোনেই আছে কোয়ালকাম স্ন্যাপড্রাগন ৮৬৫ প্রসেসর, দুর্দান্ত ক্যামেরা।  আমরা আগেই জানিয়েছিলাম যে রিয়ালমি এক্স৫০ প্রো ৫জি ফোনে থাকছে ৬৫ ডব্লু দ্রুত চার্জিং সাপোর্ট- এটিই এই দেশের প্রথম ফোন যাতে এই সাপোর্ট থাকছে। তাই ৫জি নেটওয়ার্ক পাওয়া যাক আর না যাক এই ফোনের চাহিদা তুঙ্গে থাকবেই। আর বিদেশে গেলে যদি সেই দেশে ৫জি-এর সুবিধে পাওয়া যায় ব্যবহারকারীরা দারুণ স্পিডে ইন্টারনেট ডেটা পাবেন।  

ভারতে যদিও ৫জি নেটওয়ার্ক নেই, কিন্তু গ্রাহকরা চায় আরো স্পিড, নতুন স্পেসিফিকেশন সমৃদ্ধ এমন অত্যাধুনিক ফোন। এখন ৫জি ফোনের মর্ম তেমন হয়তো অনুভূত হচ্ছে না কিন্তু ভবিষ্যতে ৫জি  নেটওয়ার্ক  এই দেশে চলে এলে তখন শেষ হাসি হাসবে রিয়ালমি এবং আই কিউওও ।