স্রেফ ডিজে বা মাইক বাজানোই নয়, এবার মাধ্যমিক পরীক্ষার মাঝেই এলাকায় বসল চটুল গানের আসর। পুলিশকে জানিয়েও কোনও লাভ হয়নি বলে অভিযোগ। উত্তর দিনাজপুরের রায়গঞ্জের ঘটনা।

ঘটনার সূত্রপাত বুধবার। রাতে ডিজে ও মাইক বাজিয়ে রায়গঞ্জের ভিটিকাটিহার গ্রামে চটুল গানের আসর বসায় এলাকারই কয়েকজন যুবক। রাতভর মঞ্চে চলে স্বল্পবসনা তরুণীদের অশ্লীল নাচ। বৃহস্পতিবার সকালটুকুই যা রেহাই মিলেছিল, রাত নামতেই ফের শুরু হয়ে যায় অনুষ্ঠান। তেমনই দাবি করেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের পড়াশোনা শিকেয় ওঠে। ডিজে-র বিকট শব্দে নাজেহাল হতে হয় এলাকার মানুষকে। কিন্তু এভাবে আর কতক্ষণ থাকা যায়! শেষপর্যন্ত ১০০ নম্বর ডায়াল পুলিশে খবর দেওয়া হয়। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, রায়গঞ্জ থানা থেকে জানানো হয়, দূরত্বে কারণে রাতে পুলিশ পাঠানো সম্ভব নয়! শেষপর্যন্ত শুক্রবার সকালে যখন অনুষ্ঠান শেষ হয়, তখন স্থানীয় বাসিন্দারাই মঞ্চ ভেঙে দেন বলে জানা গিয়েছে। উদ্যোক্তাদের কারও আর নাগাল পাওয়া যায়নি। 

আরও পড়ুন: মাধ্যমিক পরীক্ষা চলাকালীন মাইক বাজিয়ে এনআরসি বিরোধী সভা, বিতর্কে সাংসদ দোলা সেন

আরও পড়ুন: বিশ্বভারতীর উপাসনা গৃহে হিন্দিতে রবীন্দ্রসঙ্গীত, বিতর্ক তুঙ্গে শান্তিনিকেতনে

মাধ্যমিক পরীক্ষার মাঝে এমন ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন রায়গঞ্জ পঞ্চায়েত সমিতি সহ সভাপতি মানস ঘোষ। তাঁর সাফ কথা, এলাকার সংস্কৃতি নষ্ট হচ্ছে। এসব জিনিস কোনওভাবেই বরদাস্ত করা হবে না। উদ্যোক্তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। খবর পৌঁছেছে বিডি-র কাছেও। যে গ্রামে এই চটুল গানের আসর বসেছিল বলে অভিযোগ, সেই  ভিটিকাটিহার গ্রামে অভিযান চালানোর আশ্বাস দিয়েছেন তিনি।  কিন্তু রাতে তো ১০০ নম্বর ডায়াল করে অভিযোগ জানানো হয়েছিল? তাহলে পুলিশ কেন ব্যবস্থা নিল না? জেলা পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, রায়গঞ্জে ভিটিকাটিহার গ্রামে যে চটুল গানের আসর বসেছে, এমন কোনও অভিযোগও নাকি জমা পড়েনি! তবে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।