এলাকায় রমরমিয়ে চলছিল জুয়ার ঠেক। অভিযান চালাতে গিয়ে হামলার মুখে পড়লেন পুলিশকর্মীরাই।  ভাঙচুর চলল পুলিশের গাড়িতেও। গুরুতর জখম দু'জন এসআই ও একজন সিভিক ভলান্টিয়ার। ঘটনায় তুমুল উত্তেজনা ছড়াল পূর্ব বর্ধমানের মন্তেশ্বরে। গ্রেফতার করা হয়েছে ১১ জনকে।

আরও পড়ুন: বাংলাদেশি পড়ুয়াকে দেশ ছাড়ার নির্দেশ বিদেশমন্ত্রকের, বিতর্ক তুঙ্গে বিশ্বভারতীতে

বুধবার রাতের ঘটনা। শিবরাত্রি উপলক্ষ্যে মেলা বসেছিল মন্তেশ্বরের মথুরাপুর গ্রামে। রমরমিয়ে চলছিল জুয়ার আসরও। কিন্তু সেই খবর আর গোপন থাকল না। গভীর রাতে পুলিশ বাহিনী নিয়ে যখন জুয়ার ঠেক ভাঙতে চান মন্তেশ্বর থানার ওসি সৈকত মণ্ডল, তখন পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে। পুলিশকে দেখামাত্রই গ্রামবাসীরা ঝাঁপিয়ে পড়েন বলে অভিযোগ। দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়েছে। কিন্তু গ্রামবাসীরা সংখ্যা অনেক বেশি ছিলেন, তাই শেষপর্যন্ত পুলিশকর্মীরা পিছু হটতে বাধ্য হন। 

আরও পড়ুন: সিসিটিভি ফুটেজেও অধরা, চোরের বুদ্ধিমত্তায় তাজ্জব পুলিশ আধিকারিকরা

পুলিশ সূত্রে খবর, সংঘর্ষে মন্তেশ্বর থানার দু'জন এসআই ও এক সিভিক ভলান্টিয়ার গুরুতর জখম হয়েছেন। তিনজনেরই শারীরিক অবস্থায় বেশ গুরুতর। এসআই ইদ্রিস শেখ ও সিভিক ভলান্টিয়ার শেখ মোস্তাফা ভর্তি বর্ধমান শহরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে। এসআই প্রশান্ত প্রামাণিককে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে কলকাতায়। এদিকে পুলিশ ও গ্রামবাসীদের সংঘর্ষের ঘটনায় এলাকায় চাপা উত্তেজনা আছে। গ্রামবাসীদের অভিযোগ, জুয়ার ঠেক ভাঙার নাম করে এলাকার পনেরোটি বাড়িতে তাণ্ডব চালিয়েছে পুলিশ।  গ্রেফতার করা হয়েছে ১১ জনকে।