প্রাক্তন ভারত অধিনায়ক এমএস ধোনির অবসরের পর কেটে গিয়েছে বেশ কয়েক দিন। সোশাল মিডিয়ায় এখনও অব্যাহত ধোনি ম্যানিয়া। দেশের হয়ে দুটি বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক ও বিশ্বের একমাত্র অধিনায়ক যিনি আইসিসির সব চ্রফি জিতেছেন তাকে সম্মান জানাতে চলছে নানা ধরনের পরিকল্পনা। ধোনির অবসরের রেশ কাটতে না কাটতেই আরও এক অধিনায়ক নিজের কেরয়ারের ইতি টানার দিনক্ষণ জানিয়ে দিলেন। তিনি অস্ট্রেলিয়ার একদিনের দলের অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চ। নিজের আন্তর্জাতিক কেরিয়ারের ভবিষ্যৎ নির্ধারণ করে ফেললেন অজি অধিনায়ক।

আরও পড়ুনঃআইপিএলের নয়া টাইটেল স্পনসরেরও নাকি রয়েছে চিনা যোগ, অস্বস্তিতে বিসিসিআই

লকডাউনের ফলে প্রায় ৫ মাসেরও বেশি সময় ধরে ক্রিকেট থেকে দূরে রয়েছেন অ্যারন ফিঞ্চ। আগামি সেপ্টেম্বর মাসে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সিরিজ দিয় মাঠে ফিরতে চলছে ব্যাগি গ্রিণরা। কিন্তু লকাউনের এই দীর্ঘ সময়ে অনেক ভাবনা চিন্তা করে অ্যারন ফিঞ্চ স্থির করেছেন খুব বেশি দিন আর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের আঙিনায় থাকবেন না তিনি। অবসর নিয়েও নিজের সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে দিয়েছেন ৩৩ বছর বয়সী এই অস্ট্রেলিয়ার তারকা ব্যাটসম্যান। বল বিকৃতি কাণ্ডে স্টিভ স্মিথের নাম জড়িয়ে যাওয়ার পর অসি দলের অধিনায়কত্বের দায়িত্ব পেয়েছিলেন ফিঞ্চ। তারপর থেকে দায়িত্ব সহকারে সেই পদ সামলেছেন ফিঞ্চ।

আরও পড়ুনঃনরেন্দ্র মোদীর অনুরোধে অবসর ভাঙতে পারেন ধোনি, রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেসের বয়ানে নেট দুনিয়ায় ঝড়

আরও পড়ুনঃনা সচিন, না সৌরভ, ভারতের ইতিহাসে প্রথম এই সম্মান পেতে চলেছেন ধোনি

তবে ২০২৩ বিশ্বকাপের আগে যে ক্রিকেটকে বিদায় জানাচ্ছেন না ফিঞ্চ সেই কথা স্পষ্ট করে দিয়েছেন তিনি। ফলে ব্যাট-প্যাড তুলে রাখার আগে আরও তিনটি আইসিসি ইভেন্টে দেশকে নেতৃত্ব দিতে পারবেন ফিঞ্চ। তিনি জানিয়েছেন,'ভারতের মাটিতে ২০২৩ বিশ্বকাপের ফাইনালের দিনটিই আমার কেরিয়ারের শেষ দিন হবে। এটাই আমার লক্ষ্য এবং নিজের সিদ্ধান্তে আমি অনড় থাকছি।' ফিঞ্চ আরও বলেন,'বেশ কিছুদিন আগে থেকেই এটা আমার মাথায় ছিল। তবে লকডাউন পর্বে বিষয়টা নিশ্চিত করে ফেলি। সেই সময় আমার ৩৬ বছর বয়স হয়ে যাবে। অবশ্য আমার ফর্ম, ফিটনেস, চোট-আঘাত প্রভৃতির প্রসঙ্গও থাকছে মাঝে।' অর্থাৎ ফিঞ্চের কথা থেকে এটুকু পরিষ্কার যে ২০২৩ সালে দেশকে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন করেই ক্রিকেটে বিদায় জানাতে চান তিনি।