সন্ধ্যার মুখে একটি বোপরোয়া গতির গাড়িতে ধাক্কা লেগে ছিটকে পড়েছিলেন রাস্তায়। আর ওঠেননি। সেই প্রাণহীন দেহ সেভাবেই রাস্তায় পড়ে থাকল। রাতভর তার উপর দিয়ে চলাচল করল গাড়ি, বাস, ট্রাক। যানবাহনের চাকার ঘসায় টুকরো টুকরো হয়ে গেল সেই মৃতদেহ। খুবলে খুবলে উঠে এল মাংস। বেরিয়ে গেল হাড়গোড়। এমনই চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের আম্রোহায় দিল্লি-লখনউ হাইওয়ে-র উপর।

পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনাটি ঘটে গত শনিবার সন্ধ্যায়। রবিবার বেলার দিকে কয়েকজন গজরুলা থানায় জানায় যে  দিল্লি-লখনউ হাইওয়ের উপর একটি লাশ পড়ে আছে। তারপর তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে মৃতদেহটি উদ্ধার করে। পুলিশ জানিয়েছে, গোটা রাত ধরে অন্তত ৬০-৭০টি গাড়ি দেহটির উপর দিয়ে চলাচল করায় একেবারে ক্ষতবিক্ষত হয়ে গিয়েছিল দেহটি। রাস্তায় প্রায় দেড়শ মিটার এলাকা জুড়ে ছড়িয়ে গিয়েছিল দেহের টুকরোগুলি। পুলিশকে রীতিমতো রাস্তা থেকে কাচিয়ে তুলতে হয় ওই দেহাবশেষ।

এমনকী সেটি মহিলার না পুরুষের দেহ তাও বোঝার উপায় ছিল না বলে জানিয়েছে পুলিশ। ময়না তদন্তের রিপোর্ট ও তার জামা কাপড়ের অবশিষ্টাংশ থেকে নির্ধারণ করা হয়, যে দেহটি একজন পুরুষের। তবে দেহটি এখনও সনাক্ত করা যায়নি। গজরুলা থানার পুলিশ জানিয়েছে, তারা সনাক্তকরণের জন্য ওই দেহের ডিএনএ নমুনা সংরক্ষণ করবেন।

গত সপ্তাহে একই ধরণের একটি ঘটনা ঘটেছিল পুনে-মুম্বই এক্সপ্রেসওয়েতে। সেখানেও একটি দ্রুতগামী গাড়িতে ধাক্কা লেগে ছিটকে পড়ে যান এক ব্যক্তি।  প্রায় ষাটটি গাড়ি সেই মৃতদেহের উপর দিয়ে চলে গিয়েছিল। পুলিশ দেহাবশেষ সংগ্রহ করেছিল এবং পরে তার শার্টের পকেট থেকে উদ্ধার হওয়া একটি চ্চিরকূট থেকে থেকে মৃত ব্যক্তির পরিচয় সনাক্ত করেছিল।