রাজ্যে আর যাই হোক এনআরসির দরকার নেই। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে সেকথাই সরাসরি জানিয়েছেন তিনি। নর্থ ব্লকে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এ কথাই বললেন মুখ্যমন্ত্রী।  

রাজ্য়ে এনআরসি রুখতে বিধানসভায় তৃণমূলের সঙ্গে একমত হয়েছে বাম,কংগ্রেস। বিজেপি ওয়াকআউট করলেও এনআরসি বিরোধী প্রস্তাবে আলোচনা হয়েছে বিধানসভায়। তাই প্রথম থেকেই মমতার দিল্লি সফরকে ঘিরে তীব্র কৌতূহল ছিল বিরোধীদের মধ্যে। সবাই ভেবেছিলেন,মোদী বা অমিত শাহের কাছে রাজ্যে এনআরসি না করার প্রস্তাব জানাবেন মমতা। দেখা গেল বাস্তবেও তেমনই হয়েছে। বৃহস্পতিবার অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠক শেষে মমতা জানান, সাংবিধানিক বাধ্য়বাধকতা থাকায় অনেক কথা বলা যায়নি। তবে রাজ্য়ে যে এনআরসির দরকার নেই তা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে জানিয়ে দিয়েছেন তিনি।  

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, অসমে এনআরসি তালিকা থেকে বাদ পড়া ১৯ লক্ষের বিষয়ে কথা বলেছি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে জানিয়েছি, এই বাদ পড়াদের মধ্যে বাঙালি ,হিন্দিভাষী  গোর্খারাও রয়েছেন। এরা সকলেই ভারতীয়। তালিকা থেকে বাদ পড়ে এরা এখন আতঙ্কিত। তাঁদের বিষয়ে সরকার যেন নজর দেয়। মমতার দাবি, কোনও ভারতীয় নাগরিক এনআরসির তালিকা থেকে বাদ যাবে না বলে তাঁকে আশ্বাস দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এখানেই থেমে থাকেনি দুজনের আলোচনা। মুখ্যমন্ত্রী জানান,সীমান্তবর্তী এলাকা হওয়ায় রাজ্যের নিরাপত্তা আরও সুরক্ষিত করতে শাহের সঙ্গে কথা হয়েছে তাঁর। তবে রাজীব কুমার নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কোনও কথা হয়নি বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

গতকালই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে বৈঠক করেন মুখ্য়মন্ত্রী।  বৈঠকের পর মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, দেউচা পাচামি প্রকল্পের উদ্বোধনে প্রধানমন্ত্রীকে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন তিনি। দেশের বৃহত্তর কোল ব্লকের উদ্বোধনে প্রধানমন্ত্রীর হাতেই দেখতে চান তিনি। মমতা বলেন, রাজ্যের যোগ্যতা দেখে কেন্দ্রীয় সরকার এই প্রকল্পটা আমাদের দিয়েছে। কাজটা রাজ্য সরকারই করবে। এই প্রকল্পের জন্য সরকারের কাছে রাজ্য ৫০ কোটি টাকা জমা দিয়েছে। আমি প্রধানমন্ত্রীকে বলেছি ,পুজো, নবরাত্রির সময় আমরা সকলেই ব্যস্ত থাকি। পুজোর পরে উনি একটা সময় বের করে রাজ্যে আসুক। কেন্দ্র-রাজ্য মিলে এই প্রকল্পের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হোক। পাশাপাশি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতের কথা বলেন মুখ্য়মন্ত্রী। অমিত শাহ সময় পেলে তিনি দেখা করে যাবেন বলে সাংবাদিকদের জানান। এদিন দেড়টায় সেই অনুযায়ী মমতাকে সময় দিয়েছিলেন অমিত শাহ।