রাত তখন ১২ টা। বাইপাসের কাছে ঘন কালো নিকশ অন্ধকার থেকে ভেসে আসছে নারী কন্ঠের 'বাঁচাও' আর্তনাদ। কিছুক্ষণের মধ্যেই তা ঠাহর হল- চলন্ত গাড়ি থেকে ভেসে আসা আওয়াজ। যিনি প্রথম আর্তনাদ শুনলেন, তিনি পরিবারের সঙ্গে বাড়ি ফিরছেন গাড়িতে। আওয়াজ শোনার পর আর দুবার ভাবেননি,নেমে পড়েছেন বাঁচাতে, ওই তরুণীকে। অভিযুক্ত গাড়িটা ততক্ষণে উদ্ধারকারীকে সামনে দেখতে পেয়ে, পায়ের উপর গাড়ি চালিয়ে দিয়েছে। কিন্তু তবুও, পা ভেঙেও তিনি বাঁচালেন নির্যাতিতা তরুণীকে। আর নিঃশব্দে বলে গেলেন যেটা, এ শহরের মেয়েরা নিজেদের নিরাপত্তা নিজেরাই নিতে পারে এবং দিতেও পারে।  

 

 

আরও পড়ুন, সোমবার দক্ষিণবঙ্গের প্রায় সব জেলাতেই বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টি, ভিজবে তিলোত্তমাও


শনিবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে ইএম বাইপাসে, আনন্দপুর থানা এলাকার আরআর প্লটে একটি আবাসনের সামনে। গাড়ির চাকায় পায়ের হাড় ভেঙে টুকরো টুকরো হয়ে গিয়েছে ওই উদ্বারকারী মহিলার। পুলিশি সূত্রে খবর, গাড়ির ভিতর থেকে ছিটকে পড়া ওই তরুণীও আতঙ্কে রয়েছেন। প্রাথমিক ভাবে পুলিশ তরুণীর সঙ্গে কথা বলে জানতে পেরেছে, গাড়ির চালকের নাম অমিতাভ বসু।  নির্যাতিতা  ওই তরুণী একজন ব্যাঙ্ক কর্মী।  কিছু মাস আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় অমিতাভ বসুর সঙ্গে আলাপ হয় তাঁর।  পঞ্চসায়রের বাসিন্দা ওই মহিলার যুবকের সঙ্গে প্রায়শই  কথা হত। ধীরে ধীরে গাঢ় হতে থাকে সম্পর্ক। বাড়তে থাকে ঘনিষ্ঠতা। এরপরই তারা সামনাসামনি দেখা করেন। শনিবার রাত সাড়ে আটটা নাগাদ তাঁরা বেরিয়েছিলেন প্রথমবার দেখা করতে। এদিকে রাত বাড়লেও ফিরতে বাধা দেয় অভিযুক্ত যুবক। এরপরেই ঘটনা মোড় নেয়। তরুণীর অভিযোগ,  গাড়ির ভিতরেই তাঁকে মারধর করতে শুরু করে ওই যুবক। এমনকী তাঁর শ্লীলতাহানিও করা হয়।

 

 

আরও পড়ুন, প্রোমোটারি-রাজের ৫ কাহন, প্রস্তাব ফেরানোয় মহিলাকে বেধড়ক মার পাটুলিতে


অপরদিকে, পুলিশ জানিয়েছে, মায়ের জন্মদিনের অনুষ্ঠান সেরে ওই আবাসন থেকে বেরিয়ে স্বামী দীপ শতপথী ও মেয়ের সঙ্গে বাড়ি ফিরছিলেন নীলাঞ্জনা চট্টোপাধ্যায়। সেই সময়ে আবাসনের কাছেই তাঁদের গাড়ির পিছনে দাঁড়ানো একটি গাড়ির ভিতর থেকে ওই তরুণীর চিৎকার শোনেন দীপ ও নীলাঞ্জনা। এরপর আর দেরি করেননি নীলাঞ্জনা। গাড়ি থেকে নেমে পিছনের গাড়ির দিকে যেতেই,  ভিতর থেকে ওই তরুণীকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়া হয়। তৎক্ষনাৎ নীলাঞ্জনা দৌড়ে গিয়ে ওই তরুণীকে উদ্ধার  করতে যেতেই গাড়িটি ধাক্কা মারে তাঁকে।   নীলাঞ্জনার পায়ের উপর দিয়েই গাড়ি চালিয়ে দেয় অভিযুক্ত যুবক। 

আরও পড়ুন, আলো নিভলেই আঙুলে-আঙুল, একাধিক নারীসঙ্গ পেতে অপহরণের ফাঁদ তথ্য প্রযুক্তির কর্মীর


এদিকে কোভিড পরিস্থিতিতে  আহত ওই মহিলাকে চিকিৎসা করার জন্য  অ্যাম্বুল্যান্স না পেয়ে তিনি ১০০ ডায়াল করেন। জানতে পেরেই কসবা ট্র্যাফিক গার্ডের এক সার্জেন্ট ঘটনাস্থলে পৌঁছে যান। কলকাতা পুলিশের ট্রমা কেয়ার অ্যাম্বুল্যান্সে চাপিয়ে নীলাঞ্জনাকে বাইপাসের একটি বেসরকারি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর ঘটনাস্থলে পৌঁছে ওই তরুণীকেও উদ্ধার করে আনন্দপুর থানার পুলিশ। তবে শহরের নারীর নিরাপত্তা নিয়ে বারবারই প্রশ্ন তুলেছেন অনেকেই। তবে এই ঘটনাই জ্বল-জ্যান্ত প্রমান, নারীই দমন করবে এ শহরের সমস্ত অশুভ শক্তিকে। বলা যায় নিরাপত্তার আঙ্গিকে ওই মহিলা নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এ শহরকে ফিরিয়ে দিলেন এক সমুদ্র আত্মবিশ্বাস। 

 

করোনা সতর্কতায় মাস্কের ব্য়বহার জানতে দেখুন ভিডিও....

"
  

        

 

চিকিৎসা সংক্রান্ত খরচ গোপন, কলকাতার ৬ হাসপাতালের বিরুদ্ধে মামলা স্বাস্থ্য কমিশনের

কোভিড আক্রান্তের ফ্ল্য়াটে ঝুলল তালা, বিপাকে পরিবার, রইল করোনা ক্রাইমের সাতকাহন

কোভিড রোগী ভর্তিতে ৫০ হাজার টাকার বেশি নেওয়া যাবে না, নয়া নির্দেশিকা জারি রাজ্যের

ভয় নেই করোনায়, মেডিক্য়ালের ৪ তলার কার্নিশে পা দোলাচ্ছে রোগী

ভুয়ো টেস্টের ফাঁদে পড়ে করোনায় মৃত্যু এক ব্য়াক্তির, গ্রেফতার প্রতারণা চক্রের ৩ জন

করোনায় ফের ১ এসবিআই কর্মীর মৃত্য়ু, মৃতের পরিবারকে চাকরি দেওযার দাবিতে ব্যাঙ্ক কর্মীরা