রাজ্যের সমস্ত আদালত  ৩১ মে পর্যন্ত বন্ধ রাখা হবে। হাইকোর্ট,  জেলা আদালত,  মহকুমা আদালত, বিশেষ আদালত সহ রাজ্যের সব আদালতে লকডাউন পরিস্থিতি জারি থাকবে ৩১ মে পর্যন্ত। বুধবার বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানান হাইকোর্ট রেজিস্ট্রার জেনারেল রাই চট্টোপাধ্যায়।

আরও পড়ুন, সোমবার থেকে শহরে চালু বেসরকারি বাস, দ্বিগুন ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্তে ক্ষতির আশঙ্কায় মালিকরাই

১৭ মে শেষ হচ্ছে তৃতীয় দফার লকডাউন। চতুর্থ দফার লকডাউনও যে জারি হবে, মঙ্গলবারই সেই ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ রাজ্যের রেড জোনগুলিকে কয়েকটি ভাগে ভাগ করে আস্তে আস্তে জনজীবন স্বাভাবিক করার পথে এগোচ্ছে রাজ্য সরকার। যদিও রাজ্যের আদালতগুলিতে জরুরি পরিস্থিতি জারি থাকছে ৩১ মে পর্যন্ত। তবে অতি জরুরি শুনানির মামলা গ্রহণ করা হবে এই সময়কালে। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই মামলাগুলির শুনানি হবে। তবে একটানা কোর্ট বন্ধ থাকার জন্য়ে সবথেকে বিপদে পড়েছেন ক্লার্করা। প্রতিদিন চুক্তিতে কাজ করেন যাঁরা। ৫০ দিনের বেশি লকডাউনে যাঁরা  পুরোপুরি রোজগার হারিয়েছেন।

 আরও পড়ুন, করোনার থাবা কলকাতার পাইকারি ওষুধ বাজারেও, দোকান বন্ধে ওষুধ নিয়ে বড়সড় আশঙ্কা

 

অপরদিকে ১৫ মে বিশেষ শুনানি রয়েছে কলকাতা হাইকোর্টে। ওইদিন করোনা সংক্রান্ত একাধিক জনস্বার্থ মামলার শুনানি রয়েছে। এই মুহূর্তে কলকাতা হাইকোর্ট নিয়মিত জীবাণুমুক্তকরণ করা হচ্ছে । রাজ্যের অন্যান্য আদালতগুলিতেও জীবাণুমুক্তকরণের কাজ চলছে। সাবধানতা অবলম্বন করেই অতি জরুরি মামলাগুলি শুনানি হচ্ছে জেলা আদালতগুলি।

 

কোভিড হাসপাতালে স্বাভাবিক মৃত্য়ুতেও পরিবার চাইলে সৎকার করবে কলকাতা পৌরসভা, জানালেন ফিরহাদ

করোনা আক্রান্ত প্রাণ হারালেন এবার রাজ্যের এক আইনজীবী, এদিকে আইসোলেশনে তাঁর স্ত্রী

কোভিড পজিটিভ হয়ে মৃত্য়ু প্রখ্যাত ইতিহাসবিদ হরিশঙ্কর বাসুদেবনের

 বেহালা হাসপাতালের প্রসুতির শরীরে মিলল এবার করোনার জীবাণু, কেপিসি-র ৩ রোগীর রিপোর্টও পজিটিভ

রোগী ফেলে পালাতে পারল না অ্যাম্বুল্যান্স, পিপিই পরা স্বাস্থ্য়কর্মীদেরকে তীব্র প্রতিবাদ নাকতলাবাসীর