আগাম ঘূর্ণীঝড় আমফানের সতর্কবার্তা থাকা সত্ত্বেও সামলানো যায়নি বাংলাকে। ঘূর্ণীঝড় আমফানের জেরে ব্য়াপক ক্ষতিগ্রস্থ হয় শহর ও শহরতলির বেশীরভাগ এলাকা।  তারপর লাগাতার উদ্ধারকাজ চলে । আর সেই আমফানের থাবায় বিধ্বস্ত এলাকাকে যারা দিনরাত এক করে উদ্ধার করেছে তাঁদেরকে সম্মান জ্ঞাপন করল কলকাতার ভাটপাড়া পুরসভা এলাকার বিশিষ্ট জনেরা।

আরও পড়ুন, সৎ মেয়েকে লাগাতার ধর্ষণ, অভিযুক্তকে বেধড়ক মার বড়তলা থানা এলাকায়


ঘূর্ণীঝড় আমফানের জেরে,সব জরুরী পরিষেবাই স্তব্ধ হয়ে পড়েছিল। তার মধ্যে  বিদ্যুৎ পরিষেবার জেরে সবচেয়ে সমস্য়ার সৃষ্টি হয়। প্রকৃতির এই বিপর্যয়ে,  বিদ্যুৎ-এর খুঁটি উপড়ে, তার ছিঁড়ে গাছ পড়ে লন্ডভন্ড হয়ে পড়ে ভাটপাড়া পুর এলাকা সহ দুটি পঞ্চায়েত এলাকা। এদিকে ৭২ ঘন্টার মধ্যেই  ৬০ শতাংশ এলাকায়  বিদ্যুৎ পরিষেবা ফিরে আসে। আমফানের রাত থেকেই রাত দিন না ঘুমিয়ে কাজ করে যায়। পথে পড়ে যাওয়া বা ভেঙে যাওয়া গাছ কেঁটে সড়িয়ে আবার নতুন ভাবে বিদ্যুৎ সংযোগ করার কাজ সম্পন্ন করে পরিষেবা স্বাভাবিক করেন। এই সমস্ত যোদ্ধাকে সম্মান জানালেন ভাটপাড়া পুরসভা এলাকার বিশিষ্ট মানুষেররা। জানালেন, ভাটপাড়া পুরসভার বিদায়ী পুরপিতা দেবপ্রসাদ সরকার।

আরও পড়ুন, মানসিক অবসাদের জেরে আরও এক মৃত্যু, আত্মঘাতি টালিগঞ্জের এক চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট

প্রসঙ্গত, ঘূর্ণীঝড় আমফানের জেরে এতটাই বিপর্যস্ত হয়েছিল বাংলা, যে অনেকাংশে এখনও স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে আসতে অনেক সময় লাগবে। এমনকি শহর এলাকাতেও আমফানের জেরে বিদ্যুৎ সংযোগ থেকে শুরু করে ইন্টারনেট পরিষেবা বিচ্ছিন্ন হয়। এদিকে করোনার জেরে তখন লকডাউনে মানুষ অসুবিধায় পড়ে। তবে  জরুরী পরিষেবা দিতে রাতদিন যুদ্ধকালীন তৎপরতায় সাহায্য় করে এনডিআরএফ এবং সেনা।

 

 

রাজ্য়ে মৃতের সংখ্যা ৬০০ ছাড়াল, ভ্য়াক্সিনের অপেক্ষায় বিশ্ব

কোভিড রোগী ফেরালেই লাইসেন্স বাতিল, হাসপাতালগুলিকে হুঁশিয়ারি রাজ্য়ের

 কলকাতায় একদিনে চিহ্নিত প্রায় ২০০ বাড়ি, কনটেইনমেন্ট জোন বৃদ্ধির কারণ বললেন মুখ্যসচিব

 করোনায় সুরক্ষাবিধি নিয়ে বিক্ষোভের জের, বদলি ১৩ পুলিশকর্মীর

করোনা আক্রান্ত নিজাম প্যালেসের এক সিবিআই আধিকারিক, স্যানিটাইজ করা হল পুরো অফিস

করোনা আবহে সুরজিৎ কর পুরকায়স্থের প্রাক্তন স্ত্রী-শাশুড়ির দেহ উদ্ধার, তদন্তে পুলিশ

দেহ রাখার জায়গা না থাকায় ডিপ ফ্রিজ বসছে মেডিকেলের মর্গে, মৃতদেহ 'ম্যানেজমেন্ট'-এ নিয়োগ অ্যাসি