করোনার সংক্রমণে জেরবার কলকাতা। সরকারি তরফে একাধিক উদ্য়োগ নেওয়া সত্ত্বেও বেড়ে যাচ্ছে আক্রান্ত তথা মৃতের সংখ্য়া। তাই এবার শহরবাসীকে বাঁচাতে যাতে সময়মতো রোগ নির্ণয় হয়ে রোগী করোনা মুক্ত হয়, সে কারণে  কলকাতা পৌরসভায় এসেছে করোনা পরীক্ষার জন্য কিয়স্ক। 

 আরও পড়ুন, করোনার থাবা কলকাতার পাইকারি ওষুধ বাজারেও, দোকান বন্ধে ওষুধ নিয়ে বড়সড় আশঙ্কা

 
জানা গিয়েছে,  এইচএসকে কর্নার পরীক্ষার জন্য সোয়াব টেস্ট করতে হলে চিকিৎসা কর্মী কালেকশন টেকনিশিয়ানরা সুরক্ষিত থাকবেন কাচের ঘরে। আর বাইরে দাঁড়িয়ে থাকবেন করোনা পরীক্ষা করতে আসা ব্যক্তিরা। করোনা পরীক্ষার জন্য সরকারি ও বেসরকারি ল্যাব ছাড়াও নমুনা সংগ্রহের কাজে নামে কলকাতা পুরসভা। অ্যাম্বুলেন্সে করে মোবাইল সব কালেকশন সেন্টারের পর এবার  কলকাতা শহরে  হবে করোনা পরীক্ষার সোয়াব সংগ্রহ।

আরও পড়ুন, রাজ্যের সব আদালত বন্ধ ৩১ মে পর্যন্ত, ভিডিও কনফারেন্সে শুনানি চললেও কাজ হারিয়ে কষ্টে ক্লার্করা


প্রসঙ্গত কলকাতায় করোনা আক্রান্তদের মধ্যে বেশিরভাগই পুরুষ। তাই করোনা সংক্রমণের মোকাবিলায় কন্টেনমেন্ট জোনগুলিতে প্রশাসনিক নজরদারি আরও বাড়ানো হয়েছে। ওই এলাকাগুলি ইতিমধ্য়েই ব্যারিকেড করে রাখা হয়েছে। অনেক জায়গাই পুরো সিল করে বসিয়ে দেওয়া হয়ে সুরক্ষা কর্মী। কলকাতা পৌরসভা সূত্রে জানা গিয়েছে,  কলকাতার ১৪১টি ওয়ার্ডের মধ্যে ১১৩টি ওয়ার্ডে করোনা থাবা বসিয়েছে। তবে ৩১টি ওয়ার্ডেই আক্রান্তের সংখ্যা বেশি। বাকি ওয়ার্ডগুলিতে করোনা সংক্রমণ অপেক্ষাকৃত অনেকটাই কম।

 

 

কোভিড হাসপাতালে স্বাভাবিক মৃত্য়ুতেও পরিবার চাইলে সৎকার করবে কলকাতা পৌরসভা, জানালেন ফিরহাদ

করোনা আক্রান্ত প্রাণ হারালেন এবার রাজ্যের এক আইনজীবী, এদিকে আইসোলেশনে তাঁর স্ত্রী

কোভিড পজিটিভ হয়ে মৃত্য়ু প্রখ্যাত ইতিহাসবিদ হরিশঙ্কর বাসুদেবনের

 বেহালা হাসপাতালের প্রসুতির শরীরে মিলল এবার করোনার জীবাণু, কেপিসি-র ৩ রোগীর রিপোর্টও পজিটিভ

রোগী ফেলে পালাতে পারল না অ্যাম্বুল্যান্স, পিপিই পরা স্বাস্থ্য়কর্মীদেরকে তীব্র প্রতিবাদ নাকতলাবাসীর