পশ্চিমবঙ্গের একাধিক হাসপাতালে ইতিমধ্য়েই করোনা থাবা বসিয়েছে। কোথাও অন্য় কোনও রোগ নিয়ে এসে চিকিৎসাধীন অবস্থায় কোভিড আক্রান্ত হয়েছেন। কোথাও আবার করোনার রুগীর সেবায় থাকাকালীয় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বহু চিকিৎসক, নার্স, স্বাস্থ্য় কর্মী। তাই সংক্রমণ এখন সবদিক থেকেই সাইক্লিকভাবে ঘুরছে। আর এবার করোনার সংক্রমণ সরকারি হাসপাতালের ইএনটি বিভাগে। করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন  ইএনটি বিভাগে খোদ প্রধান চিকিৎসক।

আরও পড়ুন, শক্তি বাড়ানো আমফান নিয়ে ফের বড়সড় আশঙ্কা, প্রবল ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা কলকাতা সহ রাজ্য়ে

হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, এসএসকেএম হাসপাতালে ইএনটি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান বর্ষীয়ান চিকিৎসক গত বেশ কিছুদিন ধরেই অসুস্থ ছিলেন। বছর খানেক আগে তাঁর একটি বড় অস্ত্রোপচার হয়েছিল। সম্প্রতি এসএসকেএম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন সেপটিসেমিয়া আক্রান্ত ছিলেন ওই চিকিৎসক। তাঁর রক্তচাপ অনেকটাই নেমে আসে। শনিবার রাত থেকে জ্বর আসায় রবিবারে তাঁর লালা রসে নমুনা পরীক্ষার জন্য এসএসকেএমে পাঠানো হয়। এরপরই করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজেটিভ আসে। রিপোর্ট পজিটিভ আসতেই  দ্রুত সরকারি নিয়ম অনুযায়ী তাকে সল্টলেকের একটি বেসরকারি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। জ্বর থাকায় এবং বার্ধক্য়জনিত কারণে তাকে হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়। 

আরও পড়ুন, বুধবার থেকে কলকাতায় চালু বাস পরিষেবা, কোন কোন রুটে চলবে জানুন বিস্তারিত

অপরদিকে,হাসপাতাল সূত্রে খবর, যদিও তাঁর শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে বলে জানিয়েছেন কর্তব্যরত চিকিৎসকরা। উল্লেখ্য়, গত বছরই রাজ্য সরকারের দেওয়া চিকিৎসক সম্মানে ভূষিত হন এই প্রবীণ চিকিৎসক। রাজ্যে একের পর এক জটিল ও বিরল অস্ত্রপচারের কৃতিত্ব এই চিকিৎসকের।  রাজ্যে এখনও পর্যন্ত প্রায় দেড়শো জন চিকিৎসক বা স্বাস্থ্যকর্মী করোনা আক্রান্ত হয়েছে। দুই প্রবীণ জনপ্রিয় চিকিৎসকের করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে।

 

 

কোভিড হাসপাতালে স্বাভাবিক মৃত্য়ুতেও পরিবার চাইলে সৎকার করবে কলকাতা পৌরসভা, জানালেন ফিরহাদ

করোনা আক্রান্ত প্রাণ হারালেন এবার রাজ্যের এক আইনজীবী, এদিকে আইসোলেশনে তাঁর স্ত্রী

কোভিড পজিটিভ হয়ে মৃত্য়ু প্রখ্যাত ইতিহাসবিদ হরিশঙ্কর বাসুদেবনের

 বেহালা হাসপাতালের প্রসুতির শরীরে মিলল এবার করোনার জীবাণু, কেপিসি-র ৩ রোগীর রিপোর্টও পজিটিভ

রোগী ফেলে পালাতে পারল না অ্যাম্বুল্যান্স, পিপিই পরা স্বাস্থ্য়কর্মীদেরকে তীব্র প্রতিবাদ নাকতলাবাসীর