ঘূর্ণিঝড় আমফান এই মুহূর্তে দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে মধ্যভাগে অবস্থান করছে। দীঘা থেকে যার দূরত্ব দক্ষিণে দক্ষিণ পশ্চিম দিকে ১১৩০ কিলোমিটার। আশা করা যাচ্ছে আগামী ১২ ঘন্টায় এটি আরও শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে। এমনটাই জানিয়েছে হাওয়া অফিস।

আরও পড়ুন, ভাড়া বাড়ানোর দাবি মানল না রাজ্য, বেসরকারি বাস-মিনিবাসের চালু হওয়ার আপাতত কোনও সম্ভাবনা নেই

আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, এটি ২০ তারিখ সন্ধ্যেবেলায় অতিশক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়  হিসেবে দীঘা এবং হাতিয়া আইল্যান্ড এর মাঝখান দিয়ে অতিক্রম করার সম্ভাবনা থাকছে। ১৯ তারিখ দক্ষিণবঙ্গের উপকূলবর্তী জেলা মূলত উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলি এবং কলকাতা এই জেলাগুলিতে মাঝারি বৃষ্টি এবং দুই এক জায়গায় ভারী বৃষ্টি। ২০ তারিখ এ বৃষ্টির পরিমাণ বাড়বে ফলে দক্ষিণবঙ্গের  প্রায় সমস্ত জেলাতে হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি এবং কিছু জেলাতে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি সম্ভাবনা থাকছে।  হাওয়া অফিস জানিয়েছে,  রবিবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৮.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের থেকে ৩ ডিগ্রি বেশি।  এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৩৬.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা স্বাভাবিকের থেকে ১ ডিগ্রি বেশি।  

আরও পড়ুন, বাংলাদেশে আটকে পড়া ১৬০ জন কলকাতায় ফিরছে সোমবার, বিমানবন্দর থেকেই পাঠানো হবে কোয়ারেন্টাইনে


অপরদিকে, তিনটে উপকূলবর্তী জেলা উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা এবং পূর্ব মেদিনীপুর দুএক জায়গায় অতি ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা থাকছে। হাওয়ার গতিবেগ ৪৫ থেকে ৫৫ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টায় সর্বোচ্চ ৬৫ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টায় ১৯ তারিখ বিকেলের পর থেকে পশ্চিমবঙ্গের উপকূলের বয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকছে । ২০ তারিখ থেকে হওয়ার তীব্রতা একটু বাড়বে। ২০ তারিখ সকালে এই হাওয়ার গতিবেগ ৭৫ থেকে ৮৫ এবং সর্বোচ্চ ৯৫ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টায় থাকবে। ২০ তারিখ বিকেলে এই হওয়ার গতিবেগ আরও একটু বেড়ে গিয়ে ১২০ থেকে ১৪০ কিলোমিটার সর্বোচ্চ ১৫৫ কিলোমিটার প্রতি ঘন্টায় বয়ে যাবার সম্ভাবনা থাকছে। মৎস্যজীবীদের ১৮ তারিখ থেকে মাছ ধরতে যাবার নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। 

 

 

কোভিড হাসপাতালে স্বাভাবিক মৃত্য়ুতেও পরিবার চাইলে সৎকার করবে কলকাতা পৌরসভা, জানালেন ফিরহাদ

করোনা আক্রান্ত প্রাণ হারালেন এবার রাজ্যের এক আইনজীবী, এদিকে আইসোলেশনে তাঁর স্ত্রী

কোভিড পজিটিভ হয়ে মৃত্য়ু প্রখ্যাত ইতিহাসবিদ হরিশঙ্কর বাসুদেবনের

 বেহালা হাসপাতালের প্রসুতির শরীরে মিলল এবার করোনার জীবাণু, কেপিসি-র ৩ রোগীর রিপোর্টও পজিটিভ

রোগী ফেলে পালাতে পারল না অ্যাম্বুল্যান্স, পিপিই পরা স্বাস্থ্য়কর্মীদেরকে তীব্র প্রতিবাদ নাকতলাবাসীর