করোনার থাবা এবার  মানিকতলা থানায়। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হলেন কলকাতার মানিকতলা থানার মহিলা সাব ইন্সপেক্টর। তাকে ইএম বাইপাসের পাশে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আপাতত ওই মহিলা সাব-ইন্সপেক্টর সংস্পর্শে আসা ৯ জন পুলিশকর্মীকে কয়ারেন্টিন করা হয়েছে।

আরও পড়ুন, কোভিড পজিটিভ হয়ে মৃত্য়ু প্রখ্যাত ইতিহাসবিদ হরিশঙ্কর বাসুদেবনের

সূত্রের খবর, গত ৪ দিন ধরেই কলকাতার মানিকতলা থানার ওই  মহিলা সাব ইন্সপেক্টর জ্বর, কাশি,মাথা ধরা উপসর্গ দেখা দেয়। এরপর বেলেঘাটা নাইসেডে লালারস পাঠানো হয়। করোনা পরীক্ষায় রিপোর্ট পজিটিভ আসে। তাঁর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসতেই ওই মহিলা সাব-ইন্সপেক্টর সংস্পর্শে আসা ৯ জন পুলিশকর্মীকে কোয়রেন্টিনে পাঠানো হয়েছে। এদের প্রত্যেকের লালারসের নমুনা পরীক্ষা করা হবে। পাশাপাশি  কলকাতা পুলিশের এই আধিকারিক কীভাবে করোনা আক্রান্ত হলেন এবং মানিকতলা থানায় তিনি আরও কার কার  সংস্পর্শে এসেছিলেন, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। 

আরও পড়ুন, কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় খুলতেই ১ মাসের মধ্যে ফাইনাল সেমিস্টার, স্বাস্থ্য়বিধি মেনেই পরীক্ষা হোম সেন্টারে

উল্লেখ্য়,কলকাতার পুলিশে প্রথম বন্দর এলাকার গার্ডেনরিচ থানার ওসি নভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হন। বেশ কয়েকদিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকার পর তিনি বর্তমানে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। গত রবিবার সাইন্স সিটির পাশে প্রগতি ময়দান থানার ওসি করোনা আক্রান্ত হন। অন্যদিকে উত্তর কলকাতার জোড়াবাগান ট্রাফিক গার্ডের এক সার্জেন্ট করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর মঙ্গলবারই গোটা ট্র্যাফিক গার্ড বন্ধ করে জীবাণুমুক্ত করা হয়। জোড়াবাগান ট্রাফিক গার্ডকে কন্টেইনমেন্ট এলাকা হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। সম্প্রতি করোনা আক্রান্ত হয়েছেন পার্ক স্ট্রিট থানার স্পেশাল ব্রাঞ্চের এক কর্মী।  এর আগে বড়তলা থানার একাধিক পুলিশ কর্মীও করোনা আক্রান্ত হন বলে জানা যায়। এরই মাঝে বউবাজার থানার ওসি এবং এক পুলিশ কর্মী করোনা সংক্রমণে আক্রান্ত হন।  একের পর এক পুলিশকর্মীদের করোনা আক্রান্তের খবরে  উদ্বেগে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর।

 

 

'যোদ্ধারা সমরে-করোনা দূরে', ফের সচেতনতামূলক পথচিত্র আঁকল বেলেঘাটা ৩৩ পল্লী

বেহালা হাসপাতালের প্রসুতির শরীরে মিলল এবার করোনার জীবাণু, কেপিসি-র ৩ রোগীর রিপোর্টও পজিটিভ

রোগী ফেলে পালাতে পারল না অ্যাম্বুল্যান্স, পিপিই পরা স্বাস্থ্য়কর্মীদেরকে তীব্র প্রতিবাদ নাকতলাবাসীর