ফের অমানবিকতার চূড়ান্ত দৃশ্য দেখল কলকাতা। নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সেবা করার পর আবারও কলকাতার এক নার্স চরম হেনস্থার শিকার হলেন। করোনা আক্রান্ত হয়ে মুক্ত হওয়ার পর 'এলাকা ছাড়ো নয়তো চাকরি'-র হুমকি পেলেন পাড়া প্রতিবেশিদের থেকেই। অসহায় অবস্থায় শেষে বাধ্য হয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হয় ওই পরিবার।

আরও দেখুন, শুধু কলকাতাতেই মোট মৃত্যু ছাড়াল ১২০০, দেখুন করোনা বুলেটিনের ছবি


জানা গিয়েছে,  ১০ অগাস্ট করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর আলিপুর কম্যান্ড হাসপাতালের ওই নার্সকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি বেহালার রায় বাহাদুর রোডের বাসিন্দা। ওই নার্সের রিপোর্ট পজিটিভ আসার পর তাঁর ছেলে ও স্বামীকে ১৪ দিন হোম কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়। তাঁদের কোভিড রিপোর্ট নেগেটিভ ছিল। এরপর ২০ তারিখ সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে  বেহালার বাড়িতে ফেরেন ওই নার্স। সঙ্গে ছিল করোনা নেগেটিভ রিপোর্ট। কিন্তু আচমকা পরিস্থিতি খারাপ দিকে মোড় নেয়। তিক্ত অভিজ্ঞতার শিকার হন ওই নার্সের পরিবার। অভিযোগ, বাড়ি ফেরার পর থেকেই পাড়া-প্রতিবেশীদের হুমকির মুখে পড়তে হয় তাঁদের।  নার্সের থেকে সংক্রমণ ছড়াতে পারে, এই আশঙ্কায় পরিবার-সহ তাঁকে পাড়া ছাড়ার হুমকি দেওয়া হয় ।

আরও পড়ুন, পরপর ২বার ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল নদিয়ার বিস্তীর্ণ এলাকা, আতঙ্কে বাইরে বেরোল এলাকাবাসী


এখানেই শেষ নয়, হুমকিতে আরও জানানো হয়, পাড়া না ছাড়লে নার্সের চাকরি ছাড়তে হবে। কোনওভাবেই কোভিড রোগী সেবা করা পর এলাকায় ফেরা যাবে না।হেনস্তার মুখে পড়ে পুলিশের দ্বারস্থ হয় ওই পরিবার। পুলিশ গিয়ে পাড়ায় প্রতিবেশীদের বুঝিয়ে আসে।  তারপরও  হেনস্তা কমেনি বলে অভিযোগ। সোমবার ফের থানায় যান নার্সের ছেলে। এবার পুলিশ তাঁদের নিরাপত্তার আশ্বাস দিয়েছে। কিন্তু  আতঙ্কেই রয়েছে ওই পরিবার।
 

  

 

কোভিড রোগী ভর্তিতে ৫০ হাজার টাকার বেশি নেওয়া যাবে না, নয়া নির্দেশিকা জারি রাজ্যের

ভয় নেই করোনায়, মেডিক্য়ালের ৪ তলার কার্নিশে পা দোলাচ্ছে রোগী

ভুয়ো টেস্টের ফাঁদে পড়ে করোনায় মৃত্যু এক ব্য়াক্তির, গ্রেফতার প্রতারণা চক্রের ৩ জন

করোনায় ফের ১ এসবিআই কর্মীর মৃত্য়ু, মৃতের পরিবারকে চাকরি দেওযার দাবিতে ব্যাঙ্ক কর্মীরা

   পূর্ব ভারতের প্রথম সরকারি প্লাজমা ব্যাঙ্ক-কলকাতা মেডিকেল, করোনা রুখতে প্রস্তুতি তুঙ্গে