রাজ্যে উত্তর ২৪ পরগনায় মোট ১৪৪ টি 'এ' কনটেনমেন্ট জোন রয়েছে। অধিকাংশই সংক্রমিত জোনই কলকাতা ঘেষা। তার মধ্যে বিধাননগর পুরনিগম এবং কামারহাটি পুরসভায় 'এ' কনটেনমেন্ট জোনের সংখ্যা সবথেকে বেশি। সেখানে ১৮ টি করে এলাকা অ্যাফেক্টেড হিসেবে চিহ্নিত। তবে এবার সাধারণ মানুষের আতঙ্ক কমাতে  কন্টেনমেন্ট জোনের নিয়মের ক্ষেত্রে বদল আনার পরিকল্পনা করেছে রাজ্য সরকার। 

আরও পড়ুন, অটো-ট্যাক্সিতেও এবার 'যত সিট তত যাত্রী', স্বাস্থ্য বিধি নিয়ে কড়াকড়ি


রাজ্য সরকারের সাম্প্রতিক আপডেট অনুযায়ী,  বিধাননগরের -এ কনটেনমেন্ট জোনের তালিকা গুলি হল- ৩ নম্বর ওয়ার্ড, ৪ নম্বর ওয়ার্ড ,৬ নম্বর ওয়ার্ড (আংশিক) , ৭ নম্বর ওয়ার্ড, ৯ নম্বর ওয়ার্ড,  ১১ নম্বর ওয়ার্ড (আংশিক), ১২ নম্বর ওয়ার্ড, ১৪ নম্বর ওয়ার্ড, ১৮ নম্বর ওয়ার্ড, ২২ নম্বর ওয়ার্ড , ২৬ নম্বর ওয়ার্ড, ২৭ নম্বর ওয়ার্ড, ৩৪ নম্বর ওয়ার্ড , ৩৫ নম্বর ওয়ার্ড ,৩৬ নম্বর ওয়ার্ড  ৩৮ নম্বর ওয়ার্ড , ৪০ নম্বর ওয়ার্ড, ৪১ নম্বর ওয়ার্ড। অপরদিকে, এবার কন্টেনমেন্ট জোনের নিয়মের ক্ষেত্রে নিয়মে বদল আনার পরিকল্পনা করেছে রাজ্য সরকার। সাধারণ মানুষের আতঙ্ক কমাতেই এই পদক্ষেপ নিতে চলেছে স্বাস্থ্য ভবন। 

আরও পড়ুন, নিয়ম ভেঙে বাড়তি যাত্রী নিয়ে বাস বেরল ঠাকুরপুকুরে, ভিডিও তুলতেই সাংবাদিক নিগ্রহ

জানা গিয়েছে,  আগে করোনা ধরা পড়লে যেমন পুরো পাড়া সিল করে কন্টেনমেন্ট জোন ঘোষণা করা হত। এখন  তেমনটা করা হবে না। নতুন যে পরিকল্পনা করা হয়েছে, তাতে যে ফ্ল্যাটের বাসিন্দা করোনা পজিটিভ হবেন, শুধুমাত্র সেই ফ্ল্যাটটিকে কন্টেনমেন্ট ঘোষণা করা হবে। যদি কোনও ফ্ল্যাটের একাধিক বাসিন্দা আক্রান্ত হন, সেক্ষেত্রে সেই বহুতলটিকে কন্টেনমেন্ট এলাকা বলে ঘোষনা করা হবে। গ্রামাঞ্চলের ক্ষেত্রে কোনও বাড়ির কেউ করোনা পজিটিভ হন, তবে পুরো পাড়া সিল না করে শুধু ওই বাড়ি ও তাঁর পাশের বাড়ি কন্টেনমেন্ট এলাকা ভুক্ত হবে।  
 

 

 কলকাতা মেডিক্যালের ছাদের কার্নিশে বসে করোনা রোগী, সামলাতে গিয়ে নাজেহাল কর্তৃপক্ষ

করোনা মোকাবিলায় বড়সড় উদ্য়োগ, পরিষেবা বাড়াতে ৫০০ ডাক্তার-নার্স নিচ্ছে রাজ্য

দেহ রাখার জায়গা না থাকায় ডিপ ফ্রিজ বসছে মেডিকেলের মর্গে, মৃতদেহ 'ম্যানেজমেন্ট'-এ নিয়োগ অ্যাসিস্ট্যান্ট

কোভিড পজিটিভ হয়ে মৃত্য়ু প্রখ্যাত ইতিহাসবিদ হরিশঙ্কর বাসুদেবনের