পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের দল তেহরিক-ই-ইনসাফের প্রাক্তন বিধায়কই ভুগছেন নিরাপত্তাহীনতার অভাবে। পাকিস্তানের খাইবার পাকতুনখাওয়া প্রদেশের এক বিধায়ক  পাকিস্তানের সীমানা পেরিয়ে পালিয়ে এলেন ভারতে। 

ইমরান খানের দল তেহরিক-ই-ইনসাফ দলের বিধায়ক বলদেব কুমার এখন ভারতে রাজনৈতিক আশ্রয় দাবি করছেন। প্রসঙ্গত খাইবার পাথতুনখাওয়ার বারিকোটের বিধায়ক বলদেব কুমারের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগে মামলাও করা হয়েছিল। খাইবার প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শরন সিং-এর এক পরামর্শদাতাকে খুনের অভিযোগ ছিল তার বিরুদ্ধে। কিন্তু প্রমাণের অভাবে তাঁকে মুক্তি দেওয়া হয়। 

এই ঘটনার পর তিনি সপরিবারে ভারতে চলে আসেন এবং এখানেই পাকাপাকিভাবে রাজনৈতিক আশ্রয় দাবি করছেন। কারণ আর সেখানে ফিরে যেতে চান না তিনি। সর্বভারতীয় সংবাদ সংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাতকারে বলদেব কুমার জানিয়েছেন, পাকিস্তানে বসবাসকারী সংখ্যালঘুদের ওপর নির্বিচারে অত্যাচার চালানো হচ্ছে। সেখানে হিন্দু ও শিখ নেতাদের নির্বিচারে হত্যা করা হচ্ছে। বহু কষ্টে  ভয়ে ভয়ে সংখ্যালঘুরা সেখানে টিকে রয়েছেন। 

 

ফের ভোলবদল ট্রাম্পের, কাশ্মীর ইস্যুতে মধ্যস্থতা করতে চাইলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট

মানুষকে ভয় দেখিয়ে সন্ত্রাসবাদী পোস্টার প্রকাশ, উপত্যকায় পুলিশের জালে ৮ লস্কর জঙ্গি

কাশ্মীর নিয়ে অশান্তির জের, জঙ্গি হামলা হতে পারে দক্ষিণ ভারতেও, প্রস্তুত সেনাবাহিনী

নজির গড়ল ভারতীয় সেনা, বিশ্বের অষ্টম সর্বোচ্চ পাস-এ পা রাখল আট সদস্যের দল

প্রসঙ্গত চলতি মাসে পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশে একজন হিন্দু তরুণীকে জোর করে অপহরণ করার খবর প্রকাশ্যে এসেছিল। তারপর তাঁকে জোর করে ধর্মান্তর করা হয় বলে অভিযোগ। শুধু তাই নয় গত এক বছরে পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশেই এক হাজার অপহরণ এবং তাদের জোর করে ধর্মান্তরের ঘটনা ঘটেছিল। এই নিয়ে ইমরান খান সরকারের বিরুদ্ধে চাপ সৃষ্টি করে পঞ্জাবের একাধিক শিখ সংগঠন। পাকিস্তানে শিখদের সাম্প্রতিক অবস্থার কথা ব্যক্ত করে ভারত সরকারের দ্বারস্থ হয়েছেন তিনি।