এদেশে এখনো পর্যন্ত করোনা সংক্রমণের ঘটনা সবচেয়ে বেশি মহারাষ্ট্রে। শনিবার ৫০০ গণ্ডি ছুয়ে ফেলল এই রাজ্য। শনিবার দুপুরের মধ্যে ৪৭ জনের শরীরে নতুন করে সংক্রমণের খবর পাওয়া গেছে। এদের মধ্যে ২৮ জন মুম্বইয়ের বাসিন্দা। বাকি ১৫ জন থানের। ২ জনের পুনের ও একজন করে অমরাবতী ও পিম্পরির বাসিন্দা বলে জানা যাচ্ছে। যার ফলে এদিন মহারাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা একলাফে পৌঁছে গেছে ৫৩৭। 

 

 

মহারাষ্ট্রে এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণের ঘটনা ঘটেছে দেশের বাণিজ্য রাজধানী মুম্বইতে। এই শহরে এখনও পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ১৭৯। বাণিজ্যনগরীতে সবচেয়ে বেশি উদ্বেগ বাড়াচ্ছে ঘনবসতিপূর্ণ ধারাভি। এশিয়ার সবচেয়ে বড় বস্তিতে এখনও পর্যন্ত ৩ জনের সংক্রমণের খবর পাওয়া গিয়েছে। এদের মধ্যে একজেনর মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে এলাকার এক চিকিৎসকও। এছাড়াও আক্রান্তের তালিকায় রয়েছেন এক পুরকর্মীও। প্রায় ১০ লক্ষ মানুষের বাস এই বস্তিতে করোনার গোষ্ঠী সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়লে তা ভয়াবহ আকার ধারণ করবে বলেই আশঙ্কা। 

জুনে পরিস্থিতি হবে সবচেয়ে খারাপ, সমীক্ষা বলছে লকডাউন চলতে পারে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত

মৃত্যু মিছিলে ইতালিকে পিছনে ফেলল আমেরিকা, মারণ করোনা একদিনে প্রাণ কাড়ল ১,৪৮০ জনের

লকডাউনকে বুড়ো আঙ্গুল পাকিস্তানে, পুলিশের গাড়িতে পাথর ছুঁড়ল উন্মত্ত জনতা, দেখুন ভিডিও

এদিকে মহারাষ্ট্রে এখনও পর্যন্ত করোনা সংক্রমণে প্রাণ হারিয়েছেন ১৯ জন। গোটা দেশে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী  দুপুর পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ২,৯০২। সরকারি ভাবে মৃতের সংখ্যা ৬৮। এদেশে করোনার হটস্পট বলা হচ্ছে তবলিগ জামাতকে। এই ধর্মীয় অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ কারীদের থেকেই করোনা ছড়িয়ে পড়েছে দেশের নানা প্রান্তে।