ভারত মার্কিন সম্পর্কের বন্ধনকে আরও দৃঢ় করতেই আয়োজন করা হয়েছিল মার্কিন প্রেসিডেন্টের নাগরিক সংবর্ধনার অনুষ্ঠান নমস্তে ট্রাম্প। ভারত-মার্কিন বন্ধুত্বের সূচনা ঘটেছিল এক বাঙালী সন্ন্যাসীর হাত ধরে। তিনি স্বামী বিবেকানন্দ। শিকাগোর ধর্ম সম্মেলনে তাঁর বিখ্যাত বক্তৃতাতেই মার্কিনীদের কাছে টেনে নিয়েছিলেন তিনি। সোমবার, আহমেদাবাদের মোতেরা স্টেডিয়ামে, 'নমস্তে ট্রাম্প' অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে সেই মার্কিন প্রেসিডেন্টের মুখে শোনা গেল সেই স্বামী বিবেকানন্দ-এরই বাণী।

বিশ্বের বৃহত্তম ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রায় এক লক্ষ জনতার সামনে ট্রাম্প বলেন, 'মহান ধর্মগুরু স্বামী বিবেকানন্দ বলেছিলেন, 'যেই মুহূর্তে আমি প্রতিটি মানুষের সামনে সশ্রদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে তাঁদের মধ্যে ঈশ্বরকে দেখেছি, সেই মুহুর্তে আমি মুক্ত হয়েছি''। স্বামীজির একটি দীর্ঘ উক্তির একটি অংশ এটি। ট্রাম্প আরও যোগ করেন, 'আমেরিকা এবং ভারতে সকলেই মনে করেন, প্রত্যেকে কোনও বড় উদ্দেশ্য সাধন করতে জন্মেছি। সেই উদ্দেশ্য হল শ্রেষ্ঠত্ব এবং সিদ্ধি লাভের জন্য কর্মক্ষমতার সর্বোচ্চ সম্ভাবনায় পৌঁছনো। তবে শুধু বিবেকানন্দের বাণী-ই নয়, এদিন মার্কিন প্রেসিডেন্টের বক্তৃতায় জায়গা করে নিয়েছিল প্রাচীন হিন্দু ধর্মগ্রন্থ বেদ-ও।

গত সেপ্টেম্বরে ভার-মার্কিন সম্পর্কের বন্ধন দৃঢ় করতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর হিউস্টন সফরের সময় মোদী ও ট্রাম্প-কে একমঞ্চে এনে  'হাউদি মোদি' নামে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। তারই আদলে এদিন আহমেদাবাদে ট্রাম্পের সম্মানে 'নমস্তে ট্রাম্প' অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। মার্কিন প্রেসিডেন্টের দাবি মতো ৭০ লক্ষ মানুষ না হলেও বিপুল জনসমাগম করছিল।

সোমবার দুপুরে সপারিষদ ডোনাল্ড ট্রাম্প সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান। তাঁর সঙ্গে স্ত্রী মেলানিয়া ট্রাম্প এবং একটি পারিষদদের মধ্যে কন্যা ইভাঙ্কা ট্রাম্প এবং জামাই জ্যারেড কুশনারও ছিলেন। প্রধানমন্ত্রী মোদী, ট্রাম্পকে আলিঙ্গন করে স্বাগত জানান। এরপর সস্ত্রীক ট্রাম্প, নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে কিছুটা সময় কাটান সবরমতি আশ্রমে। সেখানে চরকা কেটে সুতোও তৈরি করেন। আগামীকাল হেলিকপ্টার চুক্তি-সহ বেশ কিছু চুক্তি ও বৈঠক হওয়ার কথা রয়েছে দুই দেশের প্রতিনিধিদের মধ্যে।