দীর্ঘ লকডাউনের জেরে অনেকেই রোজগার হারিয়েছে। মূলত যাদের বাইরে বেরিয়েই কাজ করতে হয়। আবার অনেকেই পাচ্ছে ওয়ার্ক ফর্ম হোমের সুবিধা। একদিকে কিছু মানুষের হাতে কুটোটি নেই। আবার অপরদিকে যারা ওয়ার্ক ফর্ম হোম করছে , তাঁদের বেচে যাচ্ছে যাতায়াত ভাড়া গুলি। আর তেমনই মনের সুখে, মুখ মাস্কে ঢেকে কলকাতার একটি এটিএমে ঢুকতে গিয়ে চিৎকার ব্য়াঙ্কের গ্রাহকের। করোনা পরিস্থিতি চারিদিকে এত জ্বরের উপসর্গের মাঝে শরীর পুরো গেল হয়ে ঠান্ডা। ব্য়াঙ্কের এটিএমের ভিতরে জিভ বার করে ঘুরে বেড়াচ্ছে আস্ত একটা বিষধর সাপ। 

আরও পড়ুন, প্রস্তুতি নিচ্ছে কলকাতা মেট্রো, স্বাস্থ্য় বিধি মেনেই পরিষেবা


'বন্য়রা বনে সুন্দর', বিষধর সাপ  তবে কেন এটিএমে- এই জনরোষের শিকার হয়নি বিষধর সাপ বেচারা। বরং করোনা আতঙ্কে সাপটিকে কেউ না ঘাটিয়ে আতঙ্কটাকে এনজয় করে  স্মার্ট ফোন দিয়ে  দিব্য়ি ভিডিও করেছে গ্রাহকের দল। আর সেই ভিডিও ইতিমধ্য়েই ভাইরাল। তবে না কেউ বিষধর সাপটির সঙ্গে সেলফি নেওয়ার কথা ভাবেনি। পাছে সাপটি মুখটা একটু বেশীই ভালবেসে এগিয়ে দেয় , স্মার্ট গ্রাহকের সেই বুদ্ধিটুকু আছে। রবিবার সন্ধেয় ঘটনাটি ঘটেছে কলকাতার আইসিআইসিআই ব্য়াঙ্কের একটি এটিএম-এ।

আরও পড়ুন, মুগ-মুসুরের পরিবর্তে শুধু ছোলা-অড়হর ডাল পাঠানোর সিদ্ধান্ত, অভিযোগ জানালেন খাদ্যমন্ত্রী


অপরদিকে, মাটি রঙের বিষধর সাপটি অনেকবারই বাইরের সবকিছু দেখতে পেয়েও বাইরে বেরোতে পারল না। সাধারণ মানুষই যেখানে আকছাড় দোকানে ঢুকে ভূল করে বেরোতে বা ঢুকতে গিয়ে বাড়ি খায়, সেই কাঁচেই মরীচিকা লাগলো সাপেরও। শেষে  উপায়ন্তর না দেখে সাপ বেচারা এটিএমের স্ক্রীনের উপরে মেশিনের একটা ফাঁকা অংশ পেয়ে তাঁর মধ্য়েই ঢুকে পড়ল। বাইরে ততক্ষণে শোরগোল উঠেছে, 'টাকা বেরোবে এবার -চল চল রেডি থাক'।  

 

 

 

কোভিড হাসপাতালে স্বাভাবিক মৃত্য়ুতেও পরিবার চাইলে সৎকার করবে কলকাতা পৌরসভা, জানালেন ফিরহাদ

করোনা আক্রান্ত প্রাণ হারালেন এবার রাজ্যের এক আইনজীবী, এদিকে আইসোলেশনে তাঁর স্ত্রী

কোভিড পজিটিভ হয়ে মৃত্য়ু প্রখ্যাত ইতিহাসবিদ হরিশঙ্কর বাসুদেবনের

 বেহালা হাসপাতালের প্রসুতির শরীরে মিলল এবার করোনার জীবাণু, কেপিসি-র ৩ রোগীর রিপোর্টও পজিটিভ

রোগী ফেলে পালাতে পারল না অ্যাম্বুল্যান্স, পিপিই পরা স্বাস্থ্য়কর্মীদেরকে তীব্র প্রতিবাদ নাকতলাবাসীর