কোভিড আক্রান্তকে 'সেফ হোমে' নিয়ে গেল বাঙ্গুর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এদিকে জানতেই পারল না পরিবার। টানা ৯ নেই কোনও খোঁজ-খবর। সেফহোমে গিয়েও খোঁজ পাওয়া গেল না সেই কোভিড আক্রান্ত ব্য়াক্তির। অবশেষে  বাঙ্গুর হাসপাতালের আক্রান্তের পাশের শয্য়া সঙ্গীকে ফোন করে  আসল ঘটনা জেনে আতঙ্কে পরিবার।

আরও পড়ুুন, এবার ডেঙ্গুর জন্য করোনা মুক্ত প্রবীণ, নয়া দাবি চিকিৎসকদের

যাদবপুরের শ্যামাপল্লির বছর ষাটেকের  ওই বাসিন্দা গত ২৭ জুলাই  করোনা আক্রান্ত হয়ে এমআর বাঙ্গুরে ভর্তি হন।  প্রায় ২৪ ঘণ্টা অপেক্ষার পরে পরিবারের লোকজন ওই রোগীকে হাসপাতালে ভর্তি করাতে পেরেছিলেন। কিন্তু ভোগান্তির সেখানেই শেষ নয়। অভিযোগ, রোগী-ভর্তির পরে প্রায় ৯ দিন হাসপাতালের তরফে তাঁর পরিবারকে কোনও খবরই দেওয়া হয়নি। তারপরে গত ৬ অগস্ট, বৃহস্পতিবার হাসপাতাল থেকে রোগীর ছেলেকে ফোন করে জানানো হয় যে, শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হওয়ায় ওই রোগীকে বাইপাসের ধারে একটি সেফহোমে পাঠানো হচ্ছে। কিন্তু তারপরের দিন পর্যন্ত সেই সেফ হোমের সঙ্গে যোগাযোগ করতে না পেরে ছেলে ফোন করেন বাঙ্গুর হাসপাতালে তাঁর বাবার পাশের বেডের একজন রোগীকে। তিনি জানান, যাদবপুরের ওই রোগীকে হাসপাতাল থেকে লোক এসে ফের নিয়ে গিয়েছে।

আরও পড়ুন, দিনে ৫০০০ মানুষের যাতায়াত, আতঙ্কে পাতিপুকুর মাছ বাজারে অ্যান্টিবডি টেস্ট রাজ্যের
 

এরপর রীতিমত চিন্তায় পড়ে যায় ওই পরিবার। ওই রোগীর ছেলেকে হোম কোয়রান্টিনে থাকতে হচ্ছিল বলে তিনি বাবার খোঁজ নিতে যেতে পারছিলেন না। ফলে তাঁদের এক আত্মীয় ওই সেফ হোমে খোঁজ নিতে গিয়ে জানতে পারেন, ওই রোগীর অবস্থার অবনতি হওয়ায় ফের তাঁকে হাসপাতালের নিয়ে যাওয়া হয়েছে। জরুরি বিভাগে রয়েছেন এখন ওই কোভিড রোগী। এদিকে পরিবারের অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে এমআর বাঙ্গুর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবি,   'ওই রোগীর বাড়ির লোকের নম্বর হয়তো বন্ধ ছিল বা ভুল নম্বর দেওয়া হয়েছিল, তাই যোগাযোগ করা যায়নি।'

 

 

কোভিড রোগী ভর্তিতে ৫০ হাজার টাকার বেশি নেওয়া যাবে না, নয়া নির্দেশিকা জারি রাজ্যের

ভয় নেই করোনায়, মেডিক্য়ালের ৪ তলার কার্নিশে পা দোলাচ্ছে রোগী

ভুয়ো টেস্টের ফাঁদে পড়ে করোনায় মৃত্যু এক ব্য়াক্তির, গ্রেফতার প্রতারণা চক্রের ৩ জন

করোনায় ফের ১ এসবিআই কর্মীর মৃত্য়ু, মৃতের পরিবারকে চাকরি দেওযার দাবিতে ব্যাঙ্ক কর্মীরা

   পূর্ব ভারতের প্রথম সরকারি প্লাজমা ব্যাঙ্ক-কলকাতা মেডিকেল, করোনা রুখতে প্রস্তুতি তুঙ্গে

  মৃত্যুর পর ২ দিন বাড়ির ফ্রিজে করোনা দেহ, অভিযোগ 'সাহায্য মেলেনি স্বাস্থ্য দফতর-পুরসভার'