বৃহস্পতিবার পূর্ন দিবস লকডাউন। সকাল ৬টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত রাজ্যে লকডাউনের বিধিনিষেধ জারি থাকবে। আর ইতিমধ্য়েই  শহর ও শহরতলির বুকে আরও কড়া পুলিশ। সকাল থেকেই তৎপর বিধাননগর পুলিশ। ওদিকে বেহালা, তারাতলায় চলছে নাকাচেকিং। বাইরে মাস্ক ছাড়া বেরোলেই কলকাতা পুলিশ আটক করছে।

আরও পড়ুন, লকডাউনে 'ই-কমার্সে' ছাড়, জানুন আরও কীকী খোলা থাকছে


বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই তৎপর বিধাননগর পুলিশ। সল্টলেকের বিভিন্ন রাস্তায় করা নজরদারি পুলিশের। সল্টলেকে আসা এবং সল্টলেক-উল্টোডাঙ্গা ক্রসিংয়ে কড়া নজরদারির পাশাপাশি প্রতিটি গাড়িতে চেকিং চালাচ্ছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার পূর্ন লকডাউনের দিন যারা বাইরে বের হচ্ছে তাদেরকে প্রথমে আটক করছে পুলিশ। তাঁদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। অতি জরুরী প্রয়োজনে যারা বাইরে বেরিয়েছে নির্দিষ্ট নথি দেখানোর পর তাঁদেরকে ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে এবং যারা কোনো নথি দেখাতে পারছে না তাদের গাড়িতে কেস দিচ্ছে পুলিশ। সেরকমই ছবি ধরা পরল সল্টলেকে।

আরও পড়ুন, এনআরএসে চিকিৎসক, নার্স সহ আক্রান্ত ১৪২, কোথায় মিলবে এত বেড, উদ্বিগ্ন কর্তৃপক্ষ

অপরদিকে,ডিসি সেন্ট্রাল নীলকান্ত সুধীরকুমার জানিয়েছেন,  ‌ 'পুলিশের নাকাচেকিং চলছে জোর কদমে এবং ড্রোন উড়িয়ে আরও কড়া নজরদারি রাখা হচ্ছে শহরের কনটেন্টমেন্ট এলাকাগুলিতে। 'দক্ষিণ কলকাতার বেহালা-পর্ণশ্রীতে যারা যারা লকডাউন ভেঙে অকারণে বাইরে বের হচ্ছে, পুলিশ তাদের নিজেদের  দিয়ে সাইকেলের চাকায় হাওয়া খোলাচ্ছে । পাশাপাশি বেশ কয়েকজনকে কান ধরে উঠবস করানো হয়েছে। নাকা চেকিং চলছে বেহালা, তারাতলায়।

 

করোনায় ফের ১ এসবিআই কর্মীর মৃত্য়ু, মৃতের পরিবারকে চাকরি দেওযার দাবিতে ব্যাঙ্ক কর্মীরা

   পূর্ব ভারতের প্রথম সরকারি প্লাজমা ব্যাঙ্ক-কলকাতা মেডিকেল, করোনা রুখতে প্রস্তুতি তুঙ্গে

  মৃত্যুর পর ২ দিন বাড়ির ফ্রিজে করোনা দেহ, অভিযোগ 'সাহায্য মেলেনি স্বাস্থ্য দফতর-পুরসভার'

  অঙ্গপ্রত্যঙ্গ বিকলের পরও কোভিড জয়ী ৫৪-র দুধ ব্যবসায়ী, শহরকে দিলেন এক সমুদ্র আত্মবিশ্বাস

কোভিড রোগী ফেরালেই লাইসেন্স বাতিল, হাসপাতালগুলিকে হুঁশিয়ারি রাজ্য়ের