বছর তিনেক পর ফের স্টোনম্যানের আতঙ্ক ফিরল হাওড়ায়। ঝোপের মধ্যে মিলল অজ্ঞাত পরিচয় এক যুবকের মৃতদেহ। ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে মৌড়িগ্রামে। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, ভারী পাথর দিয়ে মাথা ও মুখ থেতলে খুন করা হয়েছে ওই যুবককে। ঘটনাস্থল থেকে ভারী পাথর ও একটি ছুরি উদ্ধার করেছে পুলিশ।

আরও পড়ুন: বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গিয়ে যুবককে 'খুন', মৃতের দুই বন্ধুকে গণধোলাই স্থানীয়দে

জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার সকালে দুর্গন্ধে ভরে গিয়েছিল মৌড়িগ্রামের দক্ষিণপাড়া এলাকায়। কটু গন্ধে নাজেহাল হয়ে যাচ্ছিলেন স্থানীয় বাসিন্দারা। কিন্তু গন্ধ আসছে কোথা থেকে? খোঁজাখুঁজি শুরু করতেই রাস্তার পাশে এক যুবকের ক্ষতবিক্ষত দেহ পড়তে থাকতে দেখেন স্থানীয় বাসিন্দারা। ঘটনার জানাজানি হতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। খবর দেওয়া হয় জগাছা থানায়। পুলিশ গিয়ে মৃতদেহটি উদ্ধার করে। স্থানীয় বাসিন্দাদের অনুমান, দু'তিন আগেই ওই যুবককে ভারী পাথর দিয়ে থেতলে খুন করা হয়েছে। তারপর মৃতদেহটি রাস্তার পাশে ঝোপে ফেলে দিয়ে গিয়েছে আততায়ীরা। কিন্তু ওই যুবকের পরিচয় কি? কেনইবা তাঁকে খুন করা হল? সে সম্পর্কে কিছুই জানা যায়নি।

আরও পড়ুন: ঘুটিয়ারি শরীফে ভয়াবহ বিস্ফোরণ, গুরুতর জখম তিন শিশু

এর আগেও বেশ কয়েকবার একই কায়দার পাথর দিয়ে থেতলে খুনের ঘটনা ঘটেছে হাওড়ায়। বছর তিনেক আগে গঙ্গার ধারে হাওড়ার রামকৃষ্ণপুর ঘাটে এক যুবকের ক্ষতবিক্ষত দেহ দেখতে পান প্রাতঃভ্রমণকারীরা। মৃতদেহের পাশে আবার শিবলিঙ্গের মতো পাথর পড়েছিল। তদন্তে জানা যায়, মৃতের নাম মহম্মদ বাবুল। কোনও ঘরবাড়ি ছিল না, বছর ছাব্বিশের ওই যুবক এদিক-সেদিকে ঘুরে বেড়াতেন। 

আরও পড়ুন: দেড়বছর পর ভোটের হাওয়া হাওড়া পুরসভায়, জোরকদমে প্রস্তুতিতে শাসক ও বিরোধীপক্ষ

উল্লেখ্য, নয়ের দশকের শুরুতে কলকাতা জাঁকিয়ে বসেছিল স্টোনম্যানের আতঙ্ক। তখন বড়বাজারের ফুটপাতে পাথর দিয়ে থেঁতলে খুন করা হয়েছিল বেশ কয়েকজনকে।  তবে স্টোনম্যান বলে আদৌও কেউ ছিল না, সে রহস্যের সমাধান হয়নি আজও। হাওড়া একের এক ঘটনায় খুনের ধরন দেখে স্টোনম্যানের সাদৃশ্য খুঁজে পাচ্ছেন অনেকেই।