রবিবার সকালে ছাড়া পেলেন আনন্দপুরকাণ্ডে প্রতিবাদী নীলাঞ্জনা চট্টোপাধ্য়ায়। হাততালি দিয়ে-গান গেয়ে তাঁকে সারা হাসপাতাল সম্মান জানিয়েছে। পাশাপাশি  হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন আবার স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী।

আরও পড়ুন, ' নীলাঞ্জনাকে মেরে ফেলাটাই উদ্দেশ্য ছিল অভিষেকের-এই লক্ষ্যেই আমার লড়াই', বললেন দীপ

 

 

হাসপাতাল শূত্রে খবর, রবিবার ১১ টা ২৫ মিনিটে হাসপাতাল থেকে ছুটি পান  নীলাঞ্জনা চট্টোপাধ্য়ায়। আনন্দপুর-কাণ্ডের প্রতিবাদী নীলাঞ্জনাকে এই হাসপাতাল থেকে ছাড়ার পর ৩ মাস বিশ্রামে থাকতে বলা হয়েছে।  হাসাপাতালের প্রশিক্ষিত কর্মীরা বাড়িতে গিয়ে ব্য়ায়াম করাবেন। হাসপাতাল ছাড়ার মুহূর্তে তাঁকে হাসপাতালের কর্মীরা গান গেয়ে হাততালি দিয়ে সম্মান জানিয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায় নার্স-চিকিৎসক সকলকে পাল্টা ধন্য়বাদ জানান। প্রসঙ্গত, আনন্দপুর-কাণ্ডে নীলাঞ্জনার পা-এর হাড় গাড়ি চাকার তলায় টুকরো টুকরো হয়ে যায়। এরপর  তাঁর পা-এর অপারেশন করা হয়েছে। যদিও একদিন তিনি চিকিৎসকের তত্বাবধানেই ছিলেন। রবিবার বাড়ি যাওয়ার অনুমতি পেলেন।

আরও পড়ুন, NEET পরীক্ষার্থীদের দৌলতে যাত্রা শুরু কলকাতা মেট্রোর, স্বস্তিতে শহরবাসী

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে শনিবার  নিজের জীবনকে বাজি রেখে তরুণীর শ্লীলতাহানির রোখেন নীলাঞ্জনা ভট্টাচার্য এবং তাঁর স্বামী দীপ শতপথী। শনিবার রাত সাড়ে বারোটা নাগাদ একটি নিমন্ত্রণ রক্ষা করে ইএম বাইপাস লাগোয়া আনন্দপুর থেকে ফেরার তোড়জোড় করছিলেন নীলাঞ্জনা ভট্টাচার্য এবং তাঁর স্বামী দীপ শতপথী। আর প্লটের সামনে পার্ক করে রাখা গাড়িতে চড়েও বসেছিলেন নীলাঞ্জনা এবং দীপ। আচমকাই তাঁরা খেয়াল করেন  বাইপাসের কাছে ঘন কালো নিকশ অন্ধকার থেকে ভেসে আসছে নারী কন্ঠের 'বাঁচাও' আর্তনাদ। আওয়াজ শোনার পর  নীলাঞ্জনা আর দুবার ভাবেননি,নেমে পড়েছেন বাঁচাতে, ওই তরুণীকে। অভিযুক্ত গাড়িটা ততক্ষণে উদ্ধারকারীকে সামনে দেখতে পেয়ে, পায়ের উপর গাড়ি চালিয়ে দেয়। পরে ধরা পড়ে অভিযুক্ত যুবক। জানা যায়, অভিযুক্ত যুবকই আসলে ওই নির্যাতিতার 'হবু বর'।

 

 

 আরও পড়ুন, দুর্গাপুজোয় কলকাতাকে ইলিশ উপহার বাংলাদেশের, পুরোপুরি নিষেধাজ্ঞা তুলতে অনুরোধ

এদিকে এত কাণ্ডের পরে যার শ্লীলতাহানি রুখতে গিয়ে নিজের পা ভাঙলেন  নীলাঞ্জনা, সেই তরুনী আবার অভিযুক্ত অভিষেক বাঁচাতে গিয়েই রাতারাতি বদলে ফেললেন বয়ান। অভিষেককে বাঁচাতে পুলিশকে বললেন মিথ্য়ে। তবে সেই সময় চলছিল নীলাঞ্জনা অপারেশন। অপরদিকে আলিপুর কোর্টে ওঠে মামলা। রাতারাতি বদলে যাওয়া তরুণীর ব্যবহারে যদিও উৎসাহ দেখাননি যদিও ওই উদ্ধারকারি দম্পতি। নীলাঞ্জনা স্বামী দীপ শতপথি স্পষ্ট জানিয়েছেন, 'গাড়ি চাপা দিয়ে অভিষেক খুনই করতে চেয়েছিল নীলাঞ্জনাকে, আমি অপরাধীর শাস্তি চাই।' যদিও এতকাণ্ডের পর তরুণী আবার কোনও আষাঢ়ে গল্প শোনাবেন কি না, তা সময়ই বলবে।

 

 

       

 

চিকিৎসা সংক্রান্ত খরচ গোপন, কলকাতার ৬ হাসপাতালের বিরুদ্ধে মামলা স্বাস্থ্য কমিশনের

কোভিড আক্রান্তের ফ্ল্য়াটে ঝুলল তালা, বিপাকে পরিবার, রইল করোনা ক্রাইমের সাতকাহন

কোভিড রোগী ভর্তিতে ৫০ হাজার টাকার বেশি নেওয়া যাবে না, নয়া নির্দেশিকা জারি রাজ্যের

ভয় নেই করোনায়, মেডিক্য়ালের ৪ তলার কার্নিশে পা দোলাচ্ছে রোগী

ভুয়ো টেস্টের ফাঁদে পড়ে করোনায় মৃত্যু এক ব্য়াক্তির, গ্রেফতার প্রতারণা চক্রের ৩ জন

করোনায় ফের ১ এসবিআই কর্মীর মৃত্য়ু, মৃতের পরিবারকে চাকরি দেওযার দাবিতে ব্যাঙ্ক কর্মীরা