সোমবার থেকে খুলছে শহরের সমস্ত শপিং মল। শুক্রবার থেকে বিভিন্ন মলে শুরু হয়েছে তারই প্রস্তুতি।  সব জায়গায় জীবাণুমুক্তকরণের করার কাজ চলছে। তবে বেশির ভাগ শপিং মলের তরফে জানানো হয়েছে, আগামী কিছু দিন  সংক্রমণ থেকে দূরে রাখতেই শিশুদের নিয়ে সেখানে প্রবেশ করা যাবে না।

আরও পড়ুন, কোভিড আক্রান্তকে ছাড়তেই উল্টোডাঙ্গায় চাঞ্চল্য, প্রতিবেশীদের সোয়াব টেস্ট করছে পুরসভা

সরকারি বিধিনিষেধ মেনে শপিং মলগুলিতে  বিভিন্ন মলে শুরু হয়েছে তারই প্রস্তুতি। দক্ষিণ কলকাতার প্রিন্স আনোয়ার শাহ রোডের একটি শপিং মলে  দেখা গেল চলমান সিঁড়ি-সহ সর্বত্র জীবাণুমুক্ত করার কাজ চলছে। শপিংমল সূত্রের খবর, মাস্ক ছাড়া শপিং মলে ঢোকা যাবে না। ক্রেতার শরীরের তাপমাত্রা মাপা হবে থার্মাল স্ক্যানারের মাধ্যমে। তবেই ভিতরে প্রবেশ করতে পারবে বড় লাগেজ নিয়ে শপিং মলে কেউ ঢুকতে পারবেন না।  লিফটের বোতামেও ক্রেতাদের হাত না ছোঁয়ানোর  ব্যবস্থাও করা হচ্ছে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে শৌচালয়ের বেসিনগুলিকেও পাশাপাশি রাখা হচ্ছে না।

আরও পড়ুন, শনিবারেও বেসরকারি বাস সেভাবে রাস্তায় নামেনি, চরম দুর্ভোগে যাত্রীরা


সল্টলেক এবং নিউ টাউনের দুটি শপিং মলের কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, তাঁদের মলে পুরোদমে জীবাণুমুক্ত করার কাজ চলছে। গাড়ি রাখার বেসমেন্টেও সেই কাজ চলছে। লিফটে ওঠানামা করা যাত্রীর সংখ্যাও আগের থেকে অনেক কমানো হচ্ছে। নিউ টাউনের ওই শপিং মল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, মলে বাচ্চাদের আনা যাবে না। বড় ব্যাগ নিয়েও মলে প্রবেশ করা যাবে না। 

 

 

 পিটিএসে নতুন করে আক্রান্ত আরও ৮, করোনা মুক্ত হয়ে কাজে ফিরলেন ১০০ পুলিশ কর্মী

বাংলাদেশ ফেরৎ ২ যাত্রী করোনা পজিটিভ, কোয়ারান্টিনের পর আক্রান্ত হওয়ায় চিন্তায় স্বাস্থ্য দফতর

 কলকাতা মেডিক্যালের ছাদের কার্নিশে বসে করোনা রোগী, সামলাতে গিয়ে নাজেহাল কর্তৃপক্ষ

করোনা মোকাবিলায় বড়সড় উদ্য়োগ, পরিষেবা বাড়াতে ৫০০ ডাক্তার-নার্স নিচ্ছে রাজ্য

দেহ রাখার জায়গা না থাকায় ডিপ ফ্রিজ বসছে মেডিকেলের মর্গে, মৃতদেহ 'ম্যানেজমেন্ট'-এ নিয়োগ অ্যাসিস্ট্যান্ট