রাজ্য়ে করোনা নিয়ন্ত্রণ নিয়ে একের পর এক পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। কিন্তু অনেক ক্ষেত্রেই রোগী বা রোগীর পরিবারের কোভিড-১৯ নিয়ে সঠিক কোনও ধারণা নেই। কখন বোঝা যাবে, কীকী উপসর্গ দেখলে বোঝা যাবে যে তার করোনা হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বা তাঁকে সরকারি স্বাস্থ্য কেন্দ্রে যাওয়া উচিত। এবিষয়ে বিস্তারিত জানিয়েছেন,   রাজ্যের জন স্বাস্থ্য আধিকারিক চিকিৎসক কাজল কৃষ্ণ বণিক ।

আরও পড়ুন, পরামর্শ না মানলেই বেসরকারি হাসপাতালের লাইসেন্স বাতিল, কড়া বার্তা কমিশনের

 
উপসর্গ যুক্ত এবং উপসর্গহীন দুই ক্ষেত্রেই কোভিড পজিটিভ হওয়ার সম্ভাবনা থাকতে পারে। কী কী উপসর্গ শরীরে দেখা দিলে বোঝা যাবে করোনার লক্ষণ এবং কোন ক্ষেত্রে সেই ব্য়াক্তিকে সরকারি স্বাস্থ্য কেন্দ্রে যেতে হবে, বিস্তারিত জানালেন রাজ্যের জন স্বাস্থ্য আধিকারিক কাজল কৃষ্ণ বণিক। তিনি  জানিয়েছেন, কোভিডের ক্ষেত্রে উপসর্গ মূলত তিনটি ভাগে বিভক্ত। মৃদু, মাঝারি, সিভিয়ার বা জটিল উপসর্গ। জ্বর, গলা খুশ খুশ, কাশি এধরনের উপসর্গ দেখা দিলে তা মৃদু উপসর্গ বলে ধরে নেওয়া হয়।  মৃদু উপসর্গ মূলত ৭৫ থেকে ৮০ শতাংশ ক্ষেত্রে দেখতে পাওয়া যায়। গন্ধ না পাওয়া এবং স্বাদ না পাওয়া এগুলিকে মাঝারি উপসর্গ বলে ধরে নেওয়া হয়। এই ধরনের উপসর্গ সাধারণত ৫ থেকে ১০ শতাংশ ক্ষেত্রে দেখতে পাওয়া যায়। কারও নিঃশ্বাস নিতে অসুবিধা হচ্ছে বা শ্বাসকষ্ট শুরু হলে ধরে নেওয়া হয় সিভিয়ার বা জটিল উপসর্গ। কারও এই উপসর্গগুলি শরীরে ধরা পড়লে অবশ্যই তাঁকে সরকারি স্বাস্থ্য কেন্দ্রে যাওয়া উচিত।'

আরও দেখুন, কলকাতায় একদিনেই করোনা আক্রান্ত এগারো জনের মৃত্যু, বাড়ল সুস্থতার হারও, দেখুন ছবি

রাজ্যের জন স্বাস্থ্য আধিকারিক কাজল কৃষ্ণ বণিক এক্ষেত্রে একটি সাবধানবাণী দিয়েছেন, ' উপসর্গযুক্ত - সন্দেহভাজন ব্যক্তিদের সাবধানে থাকা উচিত। কারণ হাঁচি-কাশি থেকেও কোভিড-১৯ ভাইরাস বাইরে ছড়িয়ে পড়ে। সেখান থেকে অন্যদেরও হবারও সম্ভাবনা রয়েছে। অপরদিকে উপসর্গীহীন - সন্দেহভাজন ব্যক্তিদের ক্ষেত্রেও এটা প্রযোয্য।'
 

   

 

কোভিড রোগী ভর্তিতে ৫০ হাজার টাকার বেশি নেওয়া যাবে না, নয়া নির্দেশিকা জারি রাজ্যের

ভয় নেই করোনায়, মেডিক্য়ালের ৪ তলার কার্নিশে পা দোলাচ্ছে রোগী

ভুয়ো টেস্টের ফাঁদে পড়ে করোনায় মৃত্যু এক ব্য়াক্তির, গ্রেফতার প্রতারণা চক্রের ৩ জন

করোনায় ফের ১ এসবিআই কর্মীর মৃত্য়ু, মৃতের পরিবারকে চাকরি দেওযার দাবিতে ব্যাঙ্ক কর্মীরা