রাজনীতি থেকে অপরাধ, মানুষের সুখ,দুঃখের খবর থেকে আরও রকমারি ঘটনা- সময়ের সঙ্গে ঘটে চলে একের পর এক নিউজ। তার মধ্য়ে থেকেও বেছে আনা কিছু খবর। সময়ে সময়ে যার আপডেট পাবেন আপনি। তাই কলকাতাকে জানতে খবরে থাকুন,খবর রাখুন।

১) দেশের ছয় মেট্রোপলিটান শহরকে রেড মার্কিংয়ে রাখার পাশাপাশি  ১৭০টি জেলাকে করোনা হটস্পট হিসেবে চিহ্নিত করেছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য় মন্ত্রক।  যে জেলাগুলিতে বেশি সংখ্যায় মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন বা যেখানে আক্রান্তের সংখ্যা চার দিনের মধ্যে দ্বিগুণ হয়েছে, সেই জেলাগুলিকে হটস্পট জেলা হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে। রাজ্য়ে কোন জেলাগুলি হটস্পট, নন হটস্পট-এ নাম উঠল কার

2) দেশের ছয় মেট্রোপলিটান শহরকেই রেড মার্কিংয়ে রাখল স্বাস্থ্য় মন্ত্রক। বিগত কদিনে মৃত্যুর হার আক্রান্তের সংখ্য়ার নিরিখে  কলকাতা, দিল্লি, মুম্বই, বেঙ্গালুরু, চেন্নাই এবং হায়দরাবাদকে লাল তালিকায় রাখল কেন্দ্রীয় সরকার। এখানেই শেষ নয়, দেশের ১৭০টি জেলাকে করোনা হটস্পট হিসেবে চিহ্নিত করেছে স্বাস্থ্য় মন্ত্রক। করোনা সংক্রমণে 'রেড মার্কিংয়ে' কলকাতা, আতঙ্ক বাড়়ালো স্বাস্থ্য় মন্ত্রকের তালিকা

3) মুখ খুলেও আসল প্রসঙ্গে এড়িয়ে গেলেন মুখ্য়মন্ত্রী। রাজ্য়ে পর্যাপ্ত পরিমাণে করোনার টেস্টিং কিট থাকা সত্ত্বেও কেন কম পরীক্ষা হচ্ছে অবশেষে তার জবাব দিলেন মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়। বুধবার নবান্নে মুখ্য়মন্ত্রী বলেন,রাজ্য়ে প্রশিক্ষিত টেকনিশিয়ান না থাকার জন্য়ই কম পরীক্ষা করা হয়েছে। রাজ্য়ে করোনা টেস্ট কম কেন, জবাব দিলেন মুখ্য়মন্ত্রী.

4) কেন্দ্রের ডাকে সাড়া দিল রাজ্য় সরকার। আগামী ২০ এপ্রিল থেকে খুলে যাচ্ছে  রাজ্য়ের সব চটকল। লকডাউনে সামাজিক দূরত্ব মেনে আপাতত ১৫ শতাংশ কর্মী নিয়ে কাজ করবে এই চটকলগুলি। বুধবার নবান্নে এই ঘোষণা করেছেন মুখ্য়মন্ত্রী।২০ এপ্রিল থেকে খুলছে রাজ্য়ের সব চটকল, কেন্দ্রের কথায় সায় মমতার.

5) 'ভালো করতে গিয়ে কালো'। লকডাউনে বিশেষ শিশুদের পাশে থাকতে গিয়ে বিতর্কে তৃণমূলের সাংসদ মিমি চক্রবর্তী ও বারুইপুরের পুলিশ সুপার রশিদ মুনির খান।  কেন লকডাউন না মেনে উপেক্ষা করা হল সুপ্রিম কোর্টের নিষেধাজ্ঞা প্রশ্ন উঠেছে তা নিয়েও। লকডাউন নিয়মকে তুড়ি মেরে এইচআইভি শিশুদের নিয়ে অনুষ্ঠান, বিতর্কে সাংসদ মিমি ও এসপি.

6) দুবার চিঠি দিয়েও উত্তর আসেনি। বাধ্য় হয়ে তৃতীয়বার রাজ্য়ের কিছু চটকল খোলার জন্য় চিঠি পাঠাল স্মৃতি  ইরানির কেন্দ্রীয় বস্ত্রমন্ত্রক। জানা গিয়েছে, গত ৪এপ্রিল এ বিষয়ে প্রথ্ম চিঠি  পাঠানো হয়েছিল মুখ্য়সচিব রাজীব কুমারের কাছে। কোনও উত্তর না আসায় ফের ১৩ এপ্রিল আরও একটি চিঠি পাঠানো হয়। তাতেও মৌন থাকে মমতার সরকার। শেষ বাধ্য় হয়ে ১৫ এপ্রিল তৃতীয়বার রাজ্য়ের কাছে চিঠি পাঠিয়েছে বস্ত্রমন্ত্রক। দু'বার চিঠিতে কাজ হয়নি, জরুরি ভিত্তিতে বাংলায় চটকল খুলতে ফের বার্তা স্মৃতির মন্ত্রকের

7) করোনায় মৃত ভেবে পরিবারের কাছে অন্য দেহ তুলে দেওয়ার অভিযোগ উঠল হাসপতালের বিরুদ্ধে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে শেষপর্যন্ত নামতে হল তৃণমূলের চিকিৎসক নেতাকে। যদিও আরজিকর মেডিক্যাল কলেজের বিরুদ্ধে এর উপযুক্ত ব্য়বস্থা চেয়ে চিঠি লিখেছে মৃতের পরিবার।  করোনা রোগীর দেহ ভেবে অন্যের অন্ত্যেষ্টি,গোল বাধল আরজিকর-এ.

8) দ্রুত গতিতে বাড়ছে রাজ্য়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। তেমনই হিসেব দিচ্ছে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য় মন্ত্রক। কেন্দ্রের বুধবারের রিপোর্ট বলছে,রাজ্য়ে  করোনা সংক্রমিতের সংখ্যা ২০০ ছাড়িয়ে গেছে। তবে আশার খবর এরই মধ্য়ে সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন ৩৭ জন। রাজ্য়ে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা ৭। রাজ্য়ে ২০০ ছাড়িয়ে গেছে আক্রান্তের সংখ্য়া, হিসেব দিল কেন্দ্র.

9) এত ভঙ্গ বঙ্গদেশ, তবু রঙ্গে  ভরা।  এখানে সবজির দাম কমছে। কিন্তু মদের দাম বেড়ে চলেছে হু-হু করে। তিন.থেকে চারগুণ দামে কালোবাজারি হচ্ছে বাংলা মদের! আর দ্বিগুণ দামে বিকোচ্ছে রয়ালস্টাগ আর রাম!.লকডাউনের বাজারে হু-হু করে বাড়ছে 'বাংলার' দা

10) লকডাউনে কাজ হারানো যৌনকর্মী, রূপান্তরকামীদের মতো মানুষের পাশে দাঁড়ালেন রাজ্য়ের মুখ্যমন্ত্রী মমতা.বন্দ্যোপাধ্যায়।  মুখ্যমন্ত্রীর ঘোষণায় হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছেন  যৌনকর্মী এবং রূপান্তরকামীরা। ইতিমধ্য়েই তাঁদের হাতে চাল, ডাল, আলু, আটা, মুড়ি, বিস্কুট, সাবান, তুলে দেওয়া হয়েছে।.লকডাউনে যৌনকর্মী-রূপান্তরকামীদের পাশে দাঁড়ালেন মুখ্যমন্ত্রী, পৌঁছানো হল পর্যাপ্ত খাবার...