নবান্নে মুখ্যমন্ত্রীর মুখোমুখি হলেন বামফ্রন্টের চেয়ারম্যান। করোনা সংক্রমণ থেকে রাজ্যকে বাঁচাতে একগুচ্ছ পরামর্শ দিতে নবান্নে এসেছেন বিমান বসু। রাজনীতির ময়দানে তাঁরা একে অপরের বিপরীতে।  কিন্তু মুখোমুখি হলে পারস্পরিক সৌজন্যে কখনও কমতি পড়ে না। কুশল বিনিময়ে এ বারও তার ব্যতিক্রম হল না দুই জনের। তবে করোনা পরিস্থিতিতে নবান্নে বৈঠক করতে গিয়ে বিমান বসুর ছেঁড়া পাঞ্জাবিতে চোখ পড়ে গেল গেল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। মাস্ক না পরাও নিয়েও প্রশ্ন তুললেন মুখ্য়মন্ত্রী। 


শহরে দেদার শব্দবাজি ফাটানোর অভিযোগ, মোট ৯৮ জনকে গ্রেফতার করল পুলিশ

সম্প্রতি বিমান বসু ফোন করে ছিলেন নিজে থেকেই। রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলতে চান। এরপরও মঙ্গলবার বিকেলে নবান্নে আসার কথা বলেন তিনি। সূত্রের খবর, সদর্থক আলোচনা হয়েছে বিমান বসু এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মধ্যে। বামেদের দাবি ছিল, পরিযায়ী শ্রমিকদের উপযুক্ত চিকিত্সা, রেশনের কালোবাজারি বন্ধ করা, প্রাথমিক চিকিৎসা-কেন্দ্রে ফিভার ক্লিনিকের ব্যবস্থা করা। পাশাপাশি, করোনা পরিস্থিতি নিয়ে সর্বদলীয় বৈঠকেরও দাবি জানান বিমান বসু।

বাড়িতে আলো জ্বালাতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী, মোমবাতি হাতে রাস্তায় অতি উৎসাহীরা

 
 তবে, এবার নবান্নের বৈঠক এক নতুন মাত্রা পেয়েছে। সেটা হল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সৌজন্যতা। আশি ছুঁই ছুঁই বিমানবাবুকে কার্যত অভিভাবকের সুরে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, 'এ কী বিমানদা, আপনি ছেঁড়া পাঞ্জাবি পরে কেন বেরিয়েছেন। তার উপরে মাস্কও নেই বয়স হয়েছে আপনার।' মমতার এ কথা শুনে হেসে ফেলেন বিমান বসু। অবশ্য় মমতা তাতেও সন্তুষ্ট নন। মুখ্য়মন্ত্রী আরও বলেন, 'আপনি খুব সাবধানে থাকুন। কোনও অসুবিধা হলে আমাকে জানাবেন।' রাজনীতিতে কনিষ্ঠ মমতাকে একটু আবেগঘন গলায় বিমানের উত্তর, 'তুমিও অনেক ছোটাছুটি করছো। তোমাকেও সাবধানে থাকতে হবে।' এখানেই শেষ নয় সূর্যবাবুকে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, বিমানবাবুর মাস্ক পরার ব্যাপারটা যেন তিনি দেখে নেন।

 

 

 রাজ্য়ে করোনায় আক্রান্ত এবার এক নার্স, পরিবারকে কোয়ারেনটাইনে থাকার নির্দেশ স্বাস্থ্য দফতরের

করোনা আক্রান্তদের এমআর বাঙ্গুরে স্থানান্তর ঘিরে তুলকালাম, অভিযোগ নিয়ে অবস্থান বিক্ষোভে নার্সরা

পাঁচিল টপকালেই ভাইরাস এক্সপার্ট সেন্টার, তবুও মুখ ফিরিয়ে মেডিক্য়াল কলেজ