অসামাজিক কাজে যুক্ত থাকার অভিযোগ ছিলই। এবার এলাকায় দু'জন স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণের চেষ্টা করলেন খোদ পঞ্চায়েত সদস্যই! অভিযোগ তেমনই। ঘটনায় শোরগোল পড়ে গিয়েছে মুর্শিদাবাদের রেজিনগরে। অভিযুক্ত তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন নির্যাতিতার পরিবারের লোকেরা। জনপ্রতিনিধি পলাতক।

আরও পড়ুন: রাস্তায় নানচাকু নিয়ে বিজেপি সমর্থকের উপর হামলা, ভাইরাল ভিডিও

রবিবারের ঘটনা। রোজকার মতোই সেদিনও সন্ধ্যেবেলায় টিউশনি পড়ে বাড়ি ফিরছিল ষষ্ঠ ও নবম শ্রেণির দুই ছাত্রী। পরিবারের লোকেদের দাবি, মাঝপথে তাদের সঙ্গে ভাব জমানোর চেষ্টা করেন স্থানীয় দাদপুর পঞ্চায়েতের সদস্য তথা তৃণমূল নেতা আজিজুল শেখ। এমনকী, ফোন নম্বরও চান তিনি। কিন্তু পঞ্চায়েত সদস্য কেন এমন আচরণ করছেন? রীতিমতো হতবাক হয়ে যায় ওই দুই ছাত্রী। কিন্তু কিছু বুঝে ওঠার আগেই তাদের ধর্ষণের চেষ্টা করা হয় বলে অভিযোগ। কিশোরীদের চিৎকার যখন আশেপাশে লোকজন ছুটে আসেন, তখন অভিযুক্ত পঞ্চায়েত সদস্য পালিয়ে যান বলে জানা গিয়েছে। 

আরও পড়ুন: নেপথ্যে পরকীয়া, বিয়ের জন্য চাপ দেওয়ায় মা-মেয়েকে জীবন্ত পুড়িয়ে খুন

আরও পড়ুন: মোবাইলে প্রশ্নপত্রের 'ছবি তোলার চেষ্টা', হাতেনাতে ধরা পড়ল তিন মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী

জানা গিয়েছে, ঘটনার পর থেকে রীতিমতো আতঙ্কে ভুগছিল নির্যাতিতা ওই দুই কিশোরী। তবে বাড়িতে কিছু বলার সাহস পায়নি তারা। কিন্তু মেয়েদের আচরণে অস্বাভাবিকতা নজর এড়ায়নি বাড়ির লোকেদের। জিজ্ঞাসাবাদ করলে ভেঙে পড়ে ওই দুই স্কুলছাত্রী। সবটাই জানিয়ে দেয় তারা। খবর চাউর হতেই শোরগোল পড়ে যায় এলাকায়। দাদপুর পঞ্চায়েতের সদস্য তথা দাপুটে তৃণমূল নেতা আজিজুল শেখের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন নির্যাতিতার বাড়ির লোকেরা।  অভিযুক্ত পলাতক।