সোমবার থেকেই চালু হয়েছে ফেরি পরিষেবা৷ আর এবার ৬ জুন শনিবার থেকে কলকাতা, হাওড়া ও হুগলির ২৯টি রুটে ৪০ লঞ্চ পরিষেবা চালু হয়ে যাচ্ছে। বেশি যাত্রী নিরাপদে যাতে নদী পারাপার করতে পারে তাই রাজ্য পরিবহণ নিগম আগামিকাল থেকে এই পরিষেবা জারি থাকবে। 

আরও পড়ুন, বিশ্ব পরিবেশ দিবসে আমফানে বাংলার ক্ষতি মাপতে সফর কেন্দ্রীয় দলের, টুইটে কী বললেন মমতা

সূত্রের খবর, আগামিকাল ৬ জুন শনিবার থেকে কলকাতা, হাওড়া ও হুগলির থেকে এই ২৯টি রুটে ৪০ লঞ্চ চালাবে। কোথাও ৩০ মিনিট অন্তর তো কোথাও লঞ্চ চলবে ১ ঘন্টা অন্তর। রাজ্য পরিবহণ নিগম তাদের নয়া জলযান চালাবে এই সব রুটে। ৮ই জুন থেকে ৭০ শতাংশ কর্মী বাধ্যতামূলক যে কোনও সরকারি অফিসে। খুলে যাচ্ছে একাধিক বেসরকারি সংস্থার অফিস। সরকারি বাস রাস্তায় নেমেছে। বেসরকারি বাস রাস্তায় নামানোর চেষ্টা চলছে। এবার যাত্রী পরিবহণে জলপথের ওপর জোর দিচ্ছে রাজ্য সরকার। রাজ্য পরিবহণ নিগম তাই সিদ্ধান্ত নিয়েছে কলকাতা ও শহরতলির একাধিক রুটে জলযানের সংখ্যা যেমন বাড়ানো হবে, তেমনই নতুন লঞ্চ চালাবে তারা।  

আরও পড়ুন, শৌচাগার ব্যবহার নিয়ে ধুন্ধুমার কসবায়, বেধড়ক মারে যুবকের মৃত্যু


অপরদিকে, গত ২৩ মার্চ বিকাল পাঁচটায় হুগলি নদীতে শেষ ফেরি চলেছিল, তারপর থেকে ফেরি চলাচল বন্ধ ছিল। যার জেরে আটকে ছিল অনেক কিছুই। এবার সেই ফেরি পরিষেবা পুনরায় চালু হয়েছে ১ জুন  সোমবার থেকে ৷   সুরক্ষাবিধি মেনে কতটা ফেরি চলাচল নিরাপদ, তা দেখবেন জল পরিবহন নিগমের আধিকারিকরা।  পুলিসি নজরদারি থাকবে। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা হবে। প্রত্যেক যাত্রীর  মাস্ক পরা বাধ্য়তামূলক। পরতে হবে গ্লাভসও। তবে দফতরের কর্মীদের যাতায়াত ও কাজে যোগ দেওয়ার বিষয়ে একটা অনিশ্চয়তা আছে।

 

 

 পিটিএসে নতুন করে আক্রান্ত আরও ৮, করোনা মুক্ত হয়ে কাজে ফিরলেন ১০০ পুলিশ কর্মী

বাংলাদেশ ফেরৎ ২ যাত্রী করোনা পজিটিভ, কোয়ারান্টিনের পর আক্রান্ত হওয়ায় চিন্তায় স্বাস্থ্য দফতর

 কলকাতা মেডিক্যালের ছাদের কার্নিশে বসে করোনা রোগী, সামলাতে গিয়ে নাজেহাল কর্তৃপক্ষ

করোনা মোকাবিলায় বড়সড় উদ্য়োগ, পরিষেবা বাড়াতে ৫০০ ডাক্তার-নার্স নিচ্ছে রাজ্য

দেহ রাখার জায়গা না থাকায় ডিপ ফ্রিজ বসছে মেডিকেলের মর্গে, মৃতদেহ 'ম্যানেজমেন্ট'-এ নিয়োগ অ্যাসিস্ট্যান্ট