রাজ্য়ে লকডাউন শিথিল হওয়ার পর সোমবার থেকে অধিকাংশ পরিবহণ পরিষেবা চালু হয়েছে। তবে বাসের ক্ষেত্রে চূড়ান্ত ভোগান্তির শিকার হয়েছেন অফিস যাত্রীরা। এদিকে সোমবার অবধি চলেছে বেসরকারি বাসগুলির চালু হওয়া নিয়ে জটিলতা। যার জেরে মঙ্গলবার যাত্রীদের সুবিধা দিতে পথে নামছে বেশি সংখ্য়ায় সরকারি বাস। থাকছে  ১৫ টি রুটের বেসরকারি বাস ও মিনিবাসও।

আরও পড়ুন, মাঝেরহাট সেতুর 'সুপারস্ট্রাকচার' তৈরির কাজ শুরু মঙ্গলবার, নিয়ন্ত্রণ হবে ট্রেন চলাচল

 রাজ্য পরিবহন দফতর সূত্রে খবর, মঙ্গলবার শহরে ৬০০ বাস রাস্তায় নামানো হয়েছে।  পাশাপশি মঙ্গলবারই ১৫ টি রুটের বেসরকারি বাস ও মিনিবাস রাস্তায় নামল। পরিবহণ দফতর সূত্রে খবর আগামীকাল বাসের সংখ্যা দ্বিগুণ করা হবে।  লকডাউন অধ্যায়ে কলকাতায় প্রায় ৫০ টি রুটে সরকারি বাস পরিষেবা চালু করা হয়। তার জন্যে  মোট ২৪০ টি সরকারি বাস চলাচল শুরু হয়। লকডাউন অধ্যায়ে যে সংখ্যক বাস চলেছে তাতে অসুবিধা হলেও বাস চলাচল করে যাত্রীদের গন্তব্যে পৌঁছে দিতে পারা গেছে। কিন্তু  ১ লা জুন থেকে ৭০ শতাংশ হাজিরা নিয়ে চলছে একাধিক সরকারি অফিস। এছাড়া নিউ মাকেট , হাতিবাগান সহ একাধিক বাজার খুলে গিয়েছে। বেসরকারি অফিস অবধি বেশ কয়েকটা খুলে গেছে। এই অবস্থায় সাধারণ মানুষের যাতায়াতের প্রধান মাধ্যম ছিল সরকারি বাস। 

 

আরও পড়ুন, নির্দিষ্ট সময়ে না পৌঁছনোয় বিমান ছাড়তে দেরি, মঙ্গলবার থেকে বাড়তে পারে উড়ানের সংখ্য়া

 

অপরদিকে, পরিবহণ দফতরের তরফে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বিমানবন্দর ও রেল স্টেশনে পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্যে  যে বাস গুলি যেত সেই বাস গুলি আগামীকাল থেকে পাঠানো হবে না। সোমবার প্রায় প্রতি শিফটে ২৯৯ করে বাস পাঠানো হয়েছিল। ফলে কলকাতার রাস্তায় যাত্রীবাহী সরকারি বাস পেতে নাজেহাল হতে হল পরিবহণ নিগমকে। তাই  মঙ্গলবার থেকে এই সিদ্ধান্ত দ্রুত প্রয়োগ করতে বলা হয়েছে।
 

 

আরও পড়ুন, কলকাতা মেডিক্যালের ছাদের কার্নিশে বসে করোনা রোগী, সামলাতে গিয়ে নাজেহাল কর্তৃপক্ষ

রাজ্য়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্য়া ছাড়াল ৫০০০, একদিনে আক্রান্ত ৩১৭ 

 করোনা মোকাবিলায় বড়সড় উদ্য়োগ, পরিষেবা বাড়াতে ৫০০ ডাক্তার-নার্স নিচ্ছে রাজ্য

করোনা আক্রান্ত বেলেঘাটা থানার আধিকারিক সহ পরিবারের ৬ সদস্য, আইডিতে এখন চিকিৎসধীন

দেহ রাখার জায়গা না থাকায় ডিপ ফ্রিজ বসছে মেডিকেলের মর্গে, মৃতদেহ 'ম্যানেজমেন্ট'-এ নিয়োগ অ্যাসিস্ট্যান্ট

কোভিড পজিটিভ হয়ে মৃত্য়ু প্রখ্যাত ইতিহাসবিদ হরিশঙ্কর বাসুদেবনের